খেলাফতে ইসলামীর আমীর ও ইসলামী ঐক্যজোটের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী বলেছেন, ‘রোযা নিয়ে জাতির সাথে ভণ্ডামি করার খেসারত দিচ্ছে বিএনপি। পবিত্র রমজান ইবাদতের মাধ্যমে নিজেকে পরিশুদ্ধ করার মাস হলেও ২০০৬ সালে এই রমযানের চাঁদ দেখা নিয়ে চরম বিতর্কের জন্ম দিয়েছিল তারা। সে সময় সারাদেশে চাঁদ দেখা গিয়েছিল একদিন আগে।

শুক্রবার রাজধানীর একটি হোটেলে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট-এনডিএফ আয়োজিত ইফতার মাহফিলে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি আরো বলেন, ‘তখন মুফতি আমিনী সরকারকে সে কথা জানান। কিন্তু তারা তাতে কর্ণপাত না করে সারাদেশে কোথাও চাঁদ দেখা যায়নি বলে রেডিও-টেলিভিশনে ঘোষণা দেন। চাঁদ দেখা প্রমাণিত হওয়ায় নিজ সিদ্ধান্তে অটল থেকে শরীয়ত মোতাবেক মুফতি আমিনী দেশবাসীকে রোযা রাখার আহ্বান জানান। তার আহবানে সাড়া দিয়ে দেশের আলেম-উলামা ও ধর্মপ্রাণ মানুষ একদিন আগেই রোযা রাখা শুরু করে এবং রোযা শেষ হওয়ার পর ঈদের নামায পড়ে ঈদও পালন করে।’

হাসনাত আমিনী বলেন, ‘অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় মুফতি আমিনীর সিদ্ধান্তকে ভুল আখ্যা দিয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় আমিনী অনুসারীদের রোযা ও ঈদ পালনে বাধা দেওয়া হয়েছিল। রোযা নিয়ে সরকারের ভুল বার্তায় সেদিন জাতি বিভ্রান্ত হয়েছিল। না জেনে স্পর্শকাতর ধর্মীয় বিষয় নিয়ে বাড়াবাড়ির ফল যে ভাল হয় না, তা আজ দিবালোকের ন্যায় স্পষ্ট। রোযা নিয়ে জাতির সাথে সেই ভণ্ডামির খেসারত আজো দিচ্ছে বিএনপি।’

ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট-এনডিএফের আহ্বায়ক সালাউদ্দিন সালুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাহফিলে আরো বক্তব্য রাখেন ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই সরকার, বিএনজেপির সভাপতি ফয়েজ চৌধুরী, মুসলীম লীগের মহাসচিব আতিকুল ইসলাম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, ইসলামী ঐক্যজোটের ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা আনছারুল হক ইমরান প্রমুখ।