মনোহরদিয়া পুলিশ ক্যাম্পের টু আইসি আশিকের বিরুদ্ধে বিনাদোষে মারধোরের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার
কুষ্টিয়া সদর উপজেলার মনোহরদিয়া পুলিশ ক্যাম্পের টু আইসি আশিকের বিরুদ্ধে সাধারণ গ্রামবাসীকে বিনাদোষে মারপিটের অভিযোগ উঠেছে। গত সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে মনোহরদিয়া ইউপি’র ছয়ঘরি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। মারপিটের শিকার ব্যক্তিরা হচ্ছেন, ছয়ঘরি গ্রামের উজ্জলের ছেলে আলী, শাহজাহানের ছেলে আলীরাজ, দেলোয়ারের ছেলে রিয়াজ, আলী হোসেনের ছেলে আরিফ ও কমলের ছেলে ত্রিরনজিৎ রাস্তায় দাড়িয়ে কথা বলছিলেন। এসময় মনোহরদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির টু আইসি আশিক সিনেমাটিক স্টাইলে এসে কোন কিছু বুঝে উঠার আগে ৫জনকে বেধড়ক মারপিট করেন। এসময় টু আইসি আশিক ভুক্তভোগিদের উদ্দেশ্যে বলেন আজ ছেড়ে দিলাম আর এই মারপিটের কথা যদি কাউকে বলিস তবে তোদের কেউ রক্ষা করতে পারবে না।

এই ৫ জনের মধ্যে তিনজন পানের বরজের শ্রমিক একজন জেলে এবং একজন কলেজ ছাত্র। নিরীহ মানুষের উপর পুলিশের এই রকম মারধোর নির্যাতনের ঘটনা গ্রামবাসীরা জানার পরে সবাই ক্ষোভে ফেঁটে পড়েন। এসময় গ্রামবাসী একজোট হয়ে মনোহরদিয়া পুলিশ ক্যাম্পে এসে এই ঘটনার প্রতিবাদ জানান। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে ইবি থানার অফিসার্স ইনচার্জ রতন শেখ ঐ রাতেই মনোহরদিয়া পুলিশ ক্যাম্পে গিয়ে মারপিটের শিকার ভুক্তভোগিদের সাথে কথা বলেন এবং এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের প্রতিশ্রুতি দেন। গতকাল সরেজমিনে এলাকায় গিয়ে গ্রামের সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলে জানা যায়, পুলিশের ঐ কর্মকর্তা যাদের বিনাদোষে মারপিট করেছে তারা এলাকার নিরীহ খেটে খাওয়া মানুষ। তাদের বিরুদ্ধে কোথাও কোন অভিযোগ নেই। এই ৫জনই আওয়ামী পন্থী। তারা কোন অপরাধের সাথে কখনও কোন সময় সম্পৃক্ত ছিলেন না। তাহলে প্রজাতন্ত্রের সেবক পুলিশের এই বাড়াবাড়ি কেন?

ঐ পুলিশ কর্মকর্তা ৫জনকে মারপিট করে এসে ছয়ঘরি মোড়ে একটি ক্লাবে এসে দাম্ভিকতার সাথে বলেন বহুদিন পর মারপিট করে মজা পেলাম, হাতের জোশ মেটালাম। এসময় ঐখানে উপস্থিত ব্যক্তিরা কিছু না বুঝলেও পরে তারা জানতে পারেন কিছুক্ষন আগে ঐ গ্রামের ৫জনকে বেধড়ক পিটিয়েছেন ঐ পুলিশ কর্মকর্তা। এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঐখানে উপস্থিত থাকা আনিস নামে এক ব্যক্তি। আনিস মোবাইল ফোনে এই প্রতিবেদককে জানান, টু আইসি দাম্ভিকতা দেখিয়ে যখন এই কথাগুলো বলছিলেন তখন আমিসহ বেশ কয়েকজন ঐ ক্লাবে উপস্থিত ছিলাম। এই সংক্রান্ত ফোন রেকর্ডসহ তথ্য উপাত্ত এই প্রতিবেদকের হাতে সংরক্ষিত আছে।

এলাকাবাসী অভিযোগ করছেন, এই টু আইসি আশিক এর আগেও বিভিন্ন হুমকী ধামকী দিয়ে এলাকার সাধারণ মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা পয়সা আদায় করেছে। তার চলাফেরা জীবন যাপন দেখে মনে হয় তিনিই এই এলাকার সর্বেসর্বা। যে কোন সময় যে কোন ব্যক্তি তুচ্ছতাছিল্য গালিগালাজ করে থাকেন। এলাকাবাসী জানান, পুলিশ জনগণের সেবক আর মনোহরদিয়া পুরিশ ক্যাম্পের বর্তমান টু আইসি জনগণের জন্য ঘাতকের ন্যায় আচরণ করছেন। এলাকাবাসী দাবি জানান, অতিদ্রুত এই দূর্নীতিগ্রস্থ অসাধু পুলিশ কর্মকর্তাকে মনোহরদিয়া পুরিশ ক্যাম্পের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে তদন্তপূর্বক কঠোর আইনগত ব্যবস্থধা গ্রহন করা হোক। এলাকাঘুরে সাধারণ মানুষের উত্তেজনা লক্ষ্য করা গেছে এবং এলাকায় থমথমে অবস্থা রিাজ করছে।

এসকল অভিযোগের বিষয় নিয়ে মনোহরদিয়া পুলিশ ক্যাম্পের টু আইসি আশিকের সাথে কথা হলে তিনি এই প্রতিবেদককে জানান, মারপিটের কোন ঘটনা ঘটেনি।
বিষয়টির সত্যতা জানতে ইবি থানার অফিসার্স ইনচার্জ রতন শেখের সরকারী মোবাইল নাম্বারে ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ না করাই তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Advertisment ad adsense adlogger