উত্তাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

উত্তাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

 

সাত কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে আন্দোলনকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর ‘ছাত্রলীগকে লেলিয়ে দেওয়ার’ অভিযোগ এনে প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)। প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রব্বানীকে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ রেখে বিক্ষোভ করছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। আজ বুধবার (১৭ জানুয়ারি) বেলা ১১টা থেকে এ বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় প্রশাসনকে ‘মেরুদণ্ডহীন’ আখ্যা দিয়ে অবিলম্বে প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রব্বানীর পদত্যাগ দাবি করেন তারা। গত সোমবার সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা পণ্ড করে দেয় বলে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে। তবে ছাত্রলীগ নেতারা আন্দোলন কর্মসূচি পণ্ড করে দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন।তবে এ বিষয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ সাংবাদিকদের বলেন, সেখানে কারও উপর হামলা করা হয়নি।
বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা তিনটি দাবি উত্থাপন করেছেন। তা হলো- ছাত্রলীগের বঙ্গবন্ধু হলের সাধারণ সম্পাদক আল আমিন রহমানের বহিষ্কার, ছাত্রী নিপীড়নের বিচার এবং আন্দোলনের সমন্বয়ক মশিউরকে কেন পুলিশে দেয়া হয়েছে তার কারণ স্পষ্ট করা।শিক্ষার্থীদের অঘোষিত এ কর্মসূচিতে হাজার হাজার শিক্ষার্থী আন্দোলনে অংশ নিয়েছেন। প্রক্টর কার্যালয়ের জানালার কাচ ভাঙচুর করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ক্যাম্পাসে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 

/ শিক্ষা / উত্তাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

সাত কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে আন্দোলনকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর ‘ছাত্রলীগকে লেলিয়ে দেওয়ার’ অভিযোগ এনে প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)। প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রব্বানীকে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ রেখে বিক্ষোভ করছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। আজ বুধবার (১৭ জানুয়ারি) বেলা ১১টা থেকে এ বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় প্রশাসনকে ‘মেরুদণ্ডহীন’ আখ্যা দিয়ে অবিলম্বে প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রব্বানীর পদত্যাগ দাবি করেন তারা। গত সোমবার সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা পণ্ড করে দেয় বলে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে। তবে ছাত্রলীগ নেতারা আন্দোলন কর্মসূচি পণ্ড করে দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন।তবে এ বিষয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ সাংবাদিকদের বলেন, সেখানে কারও উপর হামলা করা হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা তিনটি দাবি উত্থাপন করেছেন। তা হলো- ছাত্রলীগের বঙ্গবন্ধু হলের সাধারণ সম্পাদক আল আমিন রহমানের বহিষ্কার, ছাত্রী নিপীড়নের বিচার এবং আন্দোলনের সমন্বয়ক মশিউরকে কেন পুলিশে দেয়া হয়েছে তার কারণ স্পষ্ট করা।শিক্ষার্থীদের অঘোষিত এ কর্মসূচিতে হাজার হাজার শিক্ষার্থী আন্দোলনে অংশ নিয়েছেন। প্রক্টর কার্যালয়ের জানালার কাচ ভাঙচুর করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ক্যাম্পাসে উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিকেল পৌনে তিনটার দিকে প্রক্টর তদন্ত কমিটি গঠন করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলেও শিক্ষার্থীরা অভিযুক্ত চিহ্নিত থাকায় তাকে বহিষ্কারের দাবি জানান। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা প্রক্টর কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয় বিক্ষোভ করছেন। এ অবস্থায় শিক্ষার্থীরা ফেসবুকে ইভেন্ট খুলে কয়েকদিন ধরে বিক্ষোভ কর্মসূচি করে আন্দোলন করে আসছিলো। সোমবার তাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পণ্ড করার অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতাদের শাস্তির দাবিতে আন্দোলনকারীরা প্রক্টর অফিস ঘেরাও করে।

2018-01-18T11:29:27+00:00January 18th, 2018|শিক্ষা ও সংস্কৃতি|
Advertisment ad adsense adlogger