ইবিতে বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রফেসর পদে শামসুজ্জামান খানের যোগদান অনুষ্ঠান বয়কট করেছে ইবি ছাত্রলীগ

স্টাফ রিপোর্টার
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৪২ তম সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত অনুসারে সম্মানসূচক বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রফেসর পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক বঙ্গবন্ধুর একান্ত সহচর ও দেশরতœ শেখ হাসিনার আস্থাভাজন অধ্যাপক শামসুজ্জামান খানকে। তিনি গতকাল বিকেল বাংলা বিভাগে বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রফেসর পদে যোগদান করেন। তার যোগদানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এক গনসংবর্ধনার আয়োজন করেন। গনসংবর্ধনার অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু পরিষদ, প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম শাপলা, কর্মকর্তা সমিতি, কর্মচারী সমিতি, ইংরেজি, বাংলা, ফোকলোর ও ইসলামের ইতিহাস বিভাগের পক্ষ হতে ফুলেল শুভেচ্ছা দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত বক্তারা বর্তমান প্রশাসনের এই সিদ্ধান্ত যুগান্তকারী আখ্যা দিয়ে ভূয়শী প্রশংসা করেন। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল চর্চার নুতন দিগন্তের সুচনা হলেও অধ্যাপক শামসুজ্জামান খানের যোগদান ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান বয়কট করেছে ইবি ছাত্রলীগ। তথ্যনুসন্ধানে জানা গেছে, মেয়াদপূর্ন হলেও পূর্নাঙ্গ কমিটি করতে ব্যার্থ হওয়া ইবি ছাত্রলীগের এই ধরনের সিধান্তে বিব্রত পূরো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েকজন শিক্ষক নাম না প্রকাশের শর্তে জানান, ইবিতে দুজনের কমিটি প্রায় দেড় বছর সময় অতিবাহিত করলেও পূনাঙ্গ কমিটি দিতে ব্যার্থ হয়েছে। বর্তমান এই কমিটি বিভিন্ন সমালোচনামূলক কর্মকান্ডের সাথে যুক্ত হয়েছে। বঙ্গবন্ধু পরিষদের সিনিয়র নেতারাও ছাত্রলীগের এই ধরনের সিধান্তের কঠোর সমালোচনা করেছেন। অনেকে মন্তব্য করেন নিয়োগ বানিজ্য আর টেন্ডার নিয়ে ব্যস্ত থাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ ধরাকে সরা জ্ঞান করছে না। আদর্শ বলতে এদের কিছু নেই। এই রকম আনন্দের দিনে যত কারনই থাক না কেন ইবি শাখা ছাত্রলীগের আজকের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকাটা উচিত ছিলো। বিষয়টি নিয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি শাহীনুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিমের সাথে কথা সম্ভব না হলেও ছাত্রলীগের অনুষ্ঠান বয়কটের সুনির্দিষ্ট কোন কারন জানাতে পারেননি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদ আসকারী। উপাচার্য জানান, ‘যথাযথ প্রক্রিয়ায় এমনকি আমি নিজেও তাদের দাওয়াত দিয়েছি। তারা কেন অনুষ্ঠানে আসলো না এই মূহুর্তে বলতে পারছি না।

Advertisment ad adsense adlogger