ঠিক চার বছর আগে জুন মাসে গলায় ফাঁস লাগিয়ে সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলে গিয়েছিলেন ‘গজনি’-খ্যাত তরুণী অভিনেত্রী জিয়া খান। আবার এই জুন মাসেই আরেক অভিনেত্রী অঞ্জলি শ্রীবাস্তব একইভাবে মৃত্যুর পথ বেছে নিলেন। এর মাঝে ছোট পর্দার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘বালিকা বধূ’-খ্যাত বাঙালি অভিনেত্রী প্রত্যুষা ব্যানার্জিও নিজের কান্দিভেলির ফ্ল্যাটে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। তবে জিয়া খান ও প্রত্যুষার মৃত্যু আপাতদৃষ্টিতে আত্মহত্যা মনে হলেও পুলিশের অনুমান, এর পেছনে কোনো রহস্য আছে। তাই মুম্বাই পুলিশ এখনো তদন্ত চালাচ্ছে।

সোমবার সন্ধ্যাবেলায় ভোজপুরি জনপ্রিয় অভিনেত্রী অঞ্জলি শ্রীবাস্তবের মৃতদেহ উদ্ধার করল মুম্বাই পুলিশ জুহু লাইনের পরিমল অ্যাপার্টমেন্টে তাঁর ফ্ল্যাট থেকে। ভোজপুরি ছবির অত্যন্ত জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী মুম্বাইয়ের আন্ধেরির নিজের ফ্ল্যাটে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় দড়ি লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, অঞ্জলির পরিবারের লোকেরা বারবার তাঁকে ফোন ও মেসেজ করেন; কিন্তু কোনো উত্তর পান না। তখন বাধ্য হয়ে তাঁরা অঞ্জলির ফ্ল্যাটের মালিকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ফ্ল্যাটের মালিকের কাছে অভিনেত্রীর ফ্ল্যাটের অপর চাবিটি ছিল। ২৯ বছর বয়সী এই অভিনেত্রীর প্রতিবেশীরা এবং ফ্ল্যাটের মালিক সেই চাবি দিয়ে দরজা খুলে দেখেন অঞ্জলির ঝুলন্ত দেহ। তৎক্ষণাৎ তাঁরা পুলিশে খবর দেন। পুলিশ অঞ্জলির ঝুলন্ত দেহ নামিয়ে সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। তবে এ অভিনেত্রীর আত্মহত্যার কারণ পুলিশের কাছে এখনো স্পষ্ট নয়। মুম্বাই পুলিশ অভিনেত্রীর ফ্ল্যাট থেকে কোনো সুইসাইড নোটও পায়নি। এই আত্মহত্যার জন্য পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করেনি। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে এলে পুলিশ পরবর্তী কাজ শুরু করবে।

অভিনেত্রী অঞ্জলি আত্মহত্যার সাত দিন আগে আরেক অভিনেত্রী কৃতিকা চৌধুরীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়। পুলিশ ২৫ বছর বয়সী এই অভিনেত্রীর আন্ধেরির ফ্ল্যাট থেকে অর্ধগলিত মৃতদেহ উদ্ধার করে। তবে কৃতিকার মৃত্যু আত্মহত্যা নয়, তাঁকে খুন করা হয়েছে—এ ব্যাপারে নিশ্চিত পুলিশ। এই বলিউড অভিনেত্রীর মৃত্যুর রহস্য কিনারা করতে পুলিশ তাঁর সাবেক প্রেমিক ববি ও কাস্টিং ডিরেক্টর অঙ্কিত শর্মাকে দীর্ঘক্ষণ জেরা করেছে।

২০১৩ সালের ৩ জুন জিয়া খানের আত্মহত্যার জন্য তাঁর প্রেমিক বলিউড অভিনেতা আদিত্য পাঞ্চোলির ছেলে সুরজ পাঞ্চোলির বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। আর প্রত্যুষা ব্যানার্জির মৃত্যুর জন্য তাঁর প্রেমিক রাহুল রাজ সিংয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। ওই ঘটনার এখনো তদন্ত চলছে।