বিশেষ সম্পর্ক অক্ষুণ্ণ থাকবে

ভারত সফররত ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু রবিবার বলেছেন তার এই সফর দু’দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও জোরদার করবে। কৃষি ও শিল্পসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রেও এই সহযোগিতা প্রসারিত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেছেন। এএপপি, এনডিটিভি ও টাইমস অব ইন্ডিয়া।
গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার পর জাতিসংঘে ভারতের বিপক্ষে ভোট দিলেও সেটি দু’দেশের সম্পর্ককে প্রভাবিত করবে না বলে নেতানিয়াহু মনে করেন। তিনি বলেছেন, দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্যের পরিমাণ আরও বাড়বে। দু’দেশের মধ্যে ‘চমৎকার অংশীদারিত্ব’ রয়েছে উল্লেখ করে নেতানিয়াহু বলেন, জেরুজালেম ইস্যুতে বিপক্ষে ভোট দেয়ায় ইসরাইল ‘হতাশ’ হয়েছিল ঠিকই, কিন্তু একটি নেতিবাচক ভোট দু’দেশের সম্পর্ককে প্রভাবিত করবে না। দু’দেশের সম্পর্কে সামান্য দূরত্ব হওয়ার মধ্যে ভারত সফর করছেন নেতানিয়াহু। প্রোটোকল ভেঙ্গে নয়াদিল্লী বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ১২৭-৯ ভোটে প্রস্তাবটি পাস হয়। নেতানিয়াহু বলেন, দু’দেশের মধ্যে বিশেষ সম্পর্ক যা একটি ভোটে নষ্ট হয়ে যেতে পারে না। তিনি বলেন, মোদি একজন মহান নেতা, যিনি তার জনগণের অবস্থা পরিবর্তনের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। মোদির সঙ্গে সন্ত্রাসদমন চুক্তি প্রসঙ্গে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে নেতানিয়াহু বলেন, ‘সন্ত্রাস দমন নীতির মধ্যে গোয়েন্দা তথ্যের বিষয়টিও রয়েছে। সন্ত্রাসকে পরাজিত করার লক্ষ্য নিয়েই আপনাকে এর বিরুদ্ধে লড়তে হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের প্রতিরক্ষা সহযোগিতা বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিস্তৃত। এক্ষেত্রে মূল শব্দ হচ্ছে প্রতিরক্ষা। আমরা নিজেদের রক্ষা করতে চাই। আমরা কেউই আগ্রাসী দেশ নই। আমাদের কোন দেশের বিরুদ্ধে কেউ যেন আগ্রাসন চালাতে না পারে সে বিষয়ে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’ শিল্প ক্ষেত্রে ইসরাইলের অগ্রগতির কথা উল্লেখ করে নেতানিয়াহু বলেন, ভারতে এখন গাড়ির ব্যবসা ভাল চলছে। গাড়ি উৎপাদনকারী ও ক্রেতাদের মধ্যে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে ভারত ও ইসরাইলের মধ্যকার সম্পর্ক তাই গুরুত্বপূর্ণ। ১৫ বছর আগে এরিয়েল শ্যারন প্রথম ইসরাইলী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ভারত সফর করেন। নেতানিয়াহুর এই সফরের আগে ভারত ইসরাইলের সঙ্গে ৫০ কোটি ডলারের ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী স্পাইক ক্ষেপণাস্ত্র চুক্তি বাতিল করে। ইসরাইল প্রতিবছর গড়পড়তা ১শ’ কোটি ডলারের প্রতিরক্ষা সামগ্রী ভারতে করে থাকে। কিন্তু মোদি সরকার ভারতকে বিশ্বের শীর্ষ অস্ত্র ক্রেতার অবস্থান থেকে সরিয়ে নিতে আগ্রহী। তবে ভারত ক্ষেপণাস্ত্র চুক্তিটি করবে বলে নেতানিয়াহু এখনও আশাবাদী। নেতানিয়াহুর চলতি সফরের সময় চুক্তির বিস্তারিত প্রকাশ করা হবে না বলে জানা গেছে। নেতানিয়াহুর সঙ্গে ১৩০ জনের একটি বাণিজ্য প্রতিনিধি দল এসেছে। তাদের নিয়ে মুম্বাইয়ের শীর্ষ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে তিনি বৈঠক করবেন। প্রতিনিধি দলটির গুজরাটের ভাদরাদে কৃষি গবেষণা কেন্দ্র পরিদর্শনের কথা রয়েছে। সাইবার নিরাপত্তা, তেল, প্রাকৃতিক গ্যাস, ও নবায়নযোগ্য জ্বালানির বিষয়ে কয়েকটি সমঝোতা স্মারক সই হতে পারে বলে কথা রয়েছে। কূটনীতির নিয়মের বাইরে এবার নেতানিয়াহুর সফরসঙ্গী হয়েছে ১১ বছর বয়সী মোশে হোলৎসবার্গ। ২০০৮ সালে মুম্বাই হামলায় নারিম্যান হাউসে সে তার বাবা-মাকে হারিয়েছিল। গত বছর ইসরাইল সফরের সময় মোদি মোশেকে ভারতে সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।

2018-01-16T10:03:11+00:00January 16th, 2018|আন্তর্জাতিক|
Advertisment ad adsense adlogger