পাকিস্তান, চীন ও কাতারের সঙ্গে বৈঠক করেছে তালেবান

আফগান যুদ্ধের সমাধান খুঁজতে পাকিস্তানী কর্মকর্তা ও চীন এবং কাতারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনার পর খবর নিশ্চিত করেছে তালেবান। দলটির রাজনৈতিক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন তারা তাদের নেতৃত্বের এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। আসন্ন গ্রীষ্মে আফগান শান্তি প্রক্রিয়া সমস্যার মূল থেকে শুরু হতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। ভয়েস অব আমেরিকা। পশতু ভাষার ওই বিবৃতিটি বুধবার গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। বিদ্রোহী গ্রুপটি প্রথমবারের মতো নিশ্চিত করল যে, তালেবানের কাতারভিত্তিক কার্যালয় থেকে ৫ জনের একটি প্রতিনিধি দল সম্প্রতি ইসলামাবাদ সফর করে এবং সেখানে পাকিস্তানী কর্মকর্তাদের সঙ্গে তাদের আলেচনা হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, পাকিস্তান সরকারের আফগান সংঘাতের সমাধান খুঁজে বের করতে সাহায্য করার ও তাদের সঙ্গে মতবিনিময়ের প্রস্তাব পাওয়ার পর তালেবান কর্মকর্তাদের এই সফরের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। তালেবানের বিবৃতি অনুসারে কিভাবে আফগান যুদ্ধর শান্তিপূর্ণ সমাধানকে এগিয়ে নেয়া যায় সে বিষয়ে উভয় পক্ষই একে অপরের মতামত শোনেন ও ভাগাভাগি করেন। বিবৃতিতে আরও বলা হয়, পাকিস্তানের সহায়তায় তালেবান প্রতিনিধিরা পরে আফগান যুদ্ধের সমাপ্তি টানার পথ বের করতে চীন, কাতার ও অন্যান্য দেশের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেন। তালেবান নেতৃত্ব এসব আলোচনার প্রেক্ষাপটে ওইসব দেশের কর্মকর্তাদের পরামর্শের ভিত্তিতে বাড়তি পদক্ষেপ নেবেন বলেও বিবৃতিতে বলা হয়। পাকিস্তানী কর্মকর্তারা এ বিষয়ে এখনও কোন মন্তব্য করেননি, আবার তালেবান প্রতিনিধিদের অভ্যর্থনা জানানোর বিষয়টিও নিশ্চিত করেননি। তবে কূটনৈতিক সূত্র নিশ্চিত করেছে চলতি মাসের গোড়ার দিকে তালেবান প্রতিনিধিরা পাকিস্তান সফর করেন। তালেবানের এক কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন যে, কাতারের কার্যলয় থেকে কয়েকজন সদস্য পাকিস্তান সফর করেন। তবে তিনি জোর দিয়ে বলেন, তারা সেখানে শুধু তাদের পারিবারের সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাত করেছেন এবং দেশটির আফগান উদ্বাস্তু সম্প্রদায়ের জ্যেষ্ঠ প্রতিনিধিদের সঙ্গে পরামর্শ করেছেন। তালেবান প্রতিনিধিরা এমন এক সময় পাকিস্তান সফর করল যখন দেশটির ওপর তলেবান নেতাদের ও তাদের মিত্র হাক্কানি নেটওয়ার্কের সন্ত্রাসীদের আশ্রয় দেয়া বন্ধ করতে যুক্তরাষ্ট্রের চাপ রয়েছে। ইসলামাবাদ বরাবরই তাদের মাটি ব্যবহার করে সন্ত্রসীদের আন্তঃসীমান্ত হামলা চালানোর অনুমতি দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চলতি মাসের শুরুতে পাকিস্তানকে প্রদেয় সমারিক সহায়তার এক বিরাট অংশ স্থগিত করেছে এবং যে পর্যন্ত দেশটি আফগানিস্তানে মার্কিন বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা না নেবে সে পর্যন্ত সহায়তা স্থগিত থাকবে। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রতিনিধিদের অংশ হিসেবে চলতি মাসে আফগানস্তান সফর করার পর সংস্থাটিতে যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ী প্রতিনিধি নিকি হ্যালে বলেন, ট্রাম্পের নতুন কৌশল কাজ করছে।

 

2018-01-26T05:41:51+00:00January 26th, 2018|আন্তর্জাতিক|
Advertisment ad adsense adlogger