কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ দাতা সংস্থা আশ্রয় প্রদানকারী মধ্যপ্রাচ্য ও পশ্চিমা দেশগুলোর বিরুদ্ধে জোরপূর্বক শরণার্থীদের সিরিয়াতে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে সতর্ক করে বলেছে, সংঘাতপূর্ণ দেশটিতে এখনও চরম নিরাপত্তাহীনতা রয়েছে। এ অবস্থায় তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হলে তারা চরম ঝুঁকির মধ্যে পড়বে। সোমবার এক প্রতিবেদনে দাতা সংস্থাগুলো এই সতর্কতার কথা প্রকাশ করে। খবর এএফপির। যে কয়টি আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা যৌথভাবে এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কেয়ার ইন্টারন্যাশনাল, নরওয়েজিয়ান রিফ্যুজি কাউন্সিল (এনআরসি), এ্যাকশন এগনেস্ট হাঙ্গার ও ড্যানিশ রিফ্যুজি কাউন্সিল। এতে বলা হয়, দেশটিতে বোমা বিস্ফোরণ, হামলা-পাল্টা হামলা, বিমান আক্রমণসহ সন্ত্রাস অব্যাহত থাকায় শরণার্থীদের ফেরত পাঠানোর অর্থ তাদের মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া। ‘ভয়ঙ্কর উপত্যকা’ নামের এই প্রতিবেদনে বলা হয়, আশ্রয় প্রদানকারী দেশগুলো সিরিয়ার নাগরিকদের ফেরত পাঠানোর উদ্যোগ গ্রহণ করছে বা আলোচনা অব্যাহত রেখেছে। অথচ সিরিয়ার সামরিক পরিস্থিতির কোন পরিবর্তন ঘটেনি। সিরিয়াতে গত ২০০১ সাল থেকে শুরু হওয়া সহিংসতায় এখন পর্যন্ত ৩ লাখ ৪০ হাজার লোক নিহত হয়েছে। দেশটির বিপুলসংখ্যক শরণার্থীর বেশিরভাগ লেবানন, জর্দান ও তুরস্কে আশ্রয় নিয়েছে। মাত্র ৩ ভাগ শরণার্থী সম্পদশালী দেশগুলোতে আশ্রয় পেয়েছে