লাহিনী কর্মকার পাড়ায় শিশুসহ ৩ নারীকে বেধড়ক পিটালো প্রতিবেশী

মাহাতাব উদ্দিন লালন ॥ তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শিশুসহ ৩ নারীকে বেধড়ক পিটিয়েছে প্রতিবেশীরা । এঘটনায় আব্দুল আওয়ালকে ১ নং আসামী, বিল্লাল হোসেনকে ২ নং, সাইদুল ইসলামকে ৩ নং, দুলাল শেখকে ৪ নং, শফিউল আলমকে ৫ নং ও আবুল কাশেমকে ৬ নং আসামী করে কুষ্টিয়া মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে আহতের স্বামী আব্দুল ওহাব। গতকাল বিকেলে কুষ্টিয়া শহরতলীর লাহীনি কর্মকার পাড়ায় এই ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি ঘটেছে। আহত তিন নারীকে উদ্ধারকরে এলাকাবাসী চিকিৎসার জন্য কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করেছে চিকিৎসকরা । প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, কুষ্টিয়া সদর হাসপাতাল মোড়ে অবস্থিত ওহাব ফার্মেসীর মালিক আব্দুল ওহাবের পরিবারের উপর এ হামলা করেছে প্রতিবেশী আইজ উদ্দিন শেখের ছেলে আব্দুল আওয়াল, আব্দুল আওয়ালের ছেলে বিল্লাল শেখ ( ২০), ইয়াজ উদ্দিনের ছেলে সাইদুল ইসলাম (৩৫) ও শফিউল আলম (৫০), আফাজ উদ্দিনের ছেলে দুলাল শেখ (৩৫), মঈন উদ্দিনের ছেলে আবুল কাশেম (৫০)। ঘটনার বিবরণে জানাযায়, উক্ত আসামীগণের কলার বাগানে ঘাসখেতে যায়, তখন আব্দুল ওহাবের স্ত্রী মেঘলা ছাগলটি আনতে গেলে বিল্লাল শেখের স্ত্রী অনেকটা পরিকল্পিতভাবে মেঘলার সাথে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করতে থাকে এবং পরিকল্পনার অংশ হিসেবে আগে থেকে ওত পেতে থাকা আসামীরা লাঠিসোটা নিয়ে মেঘলা খাতুনের উপর হামলা চালায়। এসময় তার চিৎকার শুনে ওহাবের মা ও মামানী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে তাদের উপর পশুর মতো হামলা করে আসামীগন। এঘটনায় এলাকাবাসী অভিযুক্ত আসামীদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছে, অভিযুক্ত আসামীরা দীর্ঘদিন ধরে এলাকার অনেক নিরীহ মানুষের উপর নির্যাতন করে আসছে। প্রতিবাদ করলে তাকেও প্রাণ নাশের হুমকি দেয় তারা। তাদের ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পায় না কেউ। এলাকার যুবতীরাও বিভিন্ন সময় তাদের অত্যাচারের স্বীকার হয় বলে জানিয়েছেন অনেকে। অভিযুক্ত আসামীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

Advertisment ad adsense adlogger