11013624_1043803162320290_3379459049592310228_n

পাসের হার ৩৭ দশমিক ৯৬ ভাগ গত বছরের তুলনায় ১০ দশমিক ৫৬ শতাংশ কমেছে
আব্দুম মুনিব ॥ এইচএসসি (উচ্চ মাধ্যমিক) ও সমমানের পরীায় এ বছর কুষ্টিয়ায় পাসের হার গত বছরের তুলনায় ১০ দশমিক ৫৬ শতাংশ কমেছে। এবছর পাশের হার ৩৭.৯৬ ভাগ। গত বছর জেলায় পাশের হার ছিল ৪৮.৫২।
বোর্ড সুত্রে জানা যায়, এ বছর জেলার ৬৫টি প্রতিষ্ঠানের পরীার্থী ছিল ১৩ হাজার ২’শ ৮৯ জন। পরীার্থীদের মধ্যে পাশ করেছে ৪ হাজার ৮’শ ৯৮জন। পাশের হার শতকরা ৩৭ দশমিক ৯৬ ভাগ। কুষ্টিয়ায় ছেলেদের চেয়ে ৬০ জন মেয়ে বেশী পাশ করেছে। জেলায় ৬ হাজার ৭’শ ৭১ জন এর মধ্যে ২ হাজার ৪ ’শ ১৯ জন ছেলে এবং ৬ হাজার ৫’শ ১৮ জন এর মধ্যে ২ হাজার ৪’শ ৭৯ জন মেয়ে পাশ করেছে। এদিকে জেলায় ফলাফল বিপর্যয় হলেও বরাবরের মত ফলাফলে ভালো অবস্থান ধরে রেখেছে কুষ্টিয়া সরকারী কলেজ। এবছর প্রতিষ্ঠানের ১১শ ৪১জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২শ ২৩জন, ব্যাবসা বিভাগ থেকে ৯ জন এবং মানবীক থেকে ২ জন । ইসলামীয়া কলেজে ১২শ ৪৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে কৃতকার্য হয়েছে মাত্র ৩৭৮ জন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। কলেজের অধ্যক্ষ নওয়াব আলী বলেন, সকল বিষয়ে সৃজনশীল সেই সাথে তথ্য প্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়কে কম্পলসারী হওয়ায় ফলাফল বিপর্যয়ের কারন। এছাড়া ফলাফল বিপর্যয়ের জন্য তিনি পরীক্ষার সময় দেশের অস্থিতিশীল পরিস্থিতিকে দুষছেন। কুষ্টিয়া সরকারী মহিলা কলেজে এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় ৮শ ১০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৬১%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। কুষ্টিয়া পুলিশ লাইন স্কুল এন্ড কলেজে ৩শ ৪১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে মাত্র ১শ ৯১ জন। পাশের হার ৫৬%। গতবার পাশের হার ছিলো ৭৮%। জিএি-৫ পেয়েছে ২জন। এ পতিষ্ঠানে অধ্যক্ষ হাসানুল সিরাজী ফল বিপর্যয়ের কারণ সম্পর্কে জানান, প্রস্তুতির সাথে প্রশ্নপত্রে ভিন্নতা ছিলো। ইংরেজিতে সবচেয়ে খারাপ ফলাফল করেছে শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে কুষ্টিয়া কুওয়াতুল ইসলাম কামিল মাদ্রাসায় আলিম পরীক্ষায় এবারে ৫০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ৪৪ জন। পাশের হার ৮৮%।