খোকসায় ১লা ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধা দিবসের দাবিতে সমাবেশ

কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল এর সাথে একাত্বতা প্রকাশ করে সারা দেশের ন্যায় কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলায় ১লা ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধা দিবস ঘোষণার দাবিতে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। আজ শনিবার সকালে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদে সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মন্জেলা দারগার সভাপতিত্বে বক্তব্যদেন সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফজলুল হক।
উপস্থিত মুক্তিযুদ্ধের উদ্দের্শে তিনি বলেন, সরকার বিভিন্ন দিবস পালন করা হয় বাংলাদেশে। অথচ দেশমাতৃকার জন্য যারা জীবন দিয়ে দেশকে স্বাধীন করলো তাদের জন্য কোন দিবস আজও পর্যন্ত সরকার করতে পারেনি। এজন্য আমরা মুক্তিযোদ্ধারা দীর্ঘদিন যাবৎ দাবি করে আসছি প্রতিবছর ডিসেম্বর মাসের ১লা ডিসেম্বর কে মুক্তিযোদ্ধা দিবস ঘোষণা করার। কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিল এর সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে সারা দেশের ন্যায় কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার মুক্তিযোদ্ধারাও ১লা ডিসেম্বর কে মুক্তিযোদ্ধা দিবস পালন করার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছেন বর্তমান সরকারের কাছে।
উক্ত আলোচনা সভায় আগামী ৪ঠা ডিসেম্বর খোকসা মুক্তি দিবস উপলক্ষে আলোচনা করা হয়। দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় পালনের জন্য বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়। এ সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো জানান সকাল ১১ টার সময় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, মুক্তিযোদ্ধা প্যারড ও সাড়ে ১১ টার সময় আলোচনা সভা এবং দুপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে বিভিন্ন উপঢৌকন বিতরণ সহ বিভিন্ন কর্মসূচি রয়েছে। খোকসা মুক্ত দিবস এ অনুষ্ঠানে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন ও পুলিশ সুপার মহোদয় উপস্থিত থাকবেন বলেও জানান হয়।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে উপজেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফজলুল হক জানান ২৪৯ জন মুক্তিযোদ্ধার মধ্যে ১৬৮ জন মুক্তিযোদ্ধা এখন জীবিত আছেন। ৮১ জন মুক্তিযোদ্ধা আমাদের মধ্যে থেকে নাফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছে।
উক্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মঞ্জিল দারোগা ও সাবেক ডেপুটি কমিশনার রোকন উদ্দিন বাচ্চু, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার ও মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেকসহ উপস্থিত দেশমাতৃকার অতন্ত্রপ্রহরী খোকসটর সকল মুক্তিযোদ্ধারা।