দেড় শতাধিক দরিদ্র শীতার্ত পরিবারের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘তারুণ্য’

দেড় শতাধিক দরিদ্র শীতার্ত পরিবারের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘তারুণ্য’ । বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) সকালে কুষ্টিয়া শহরের পৌর ৬নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে এ শীত বস্ত্র বিতরণ করা হয়। তারুণ্যের সাংগঠনিক সম্পাদক সালেহ ফুয়াদ ও সদস্য সচিব সাদিয়া আফরিন খানের যৌথ উপস্থাপনায় জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ‘তারুণ্য’-এর উপদেষ্টা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ডক্টর মো. মাহবুবর রহমান, সহকারী প্রক্টর ও গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. আনিছুর রহমান, স্কুল কমিটির সভাপতি রইচ উর রহমান, সহ-সভাপতি ও কুষ্টিয়া রোটারেক্ট ক্লাবের সভাপতি ওবায়দুর রহমান। মূলত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহের মানুষের অনুদানের টাকায় এ শীতবস্ত্র সংগ্রহ করে বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে সংগঠনের সভাপতি আরমান রেজা জয় বলেন, রাত বিরাতে, সময়ে-অসময়ে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহের মানুষ তাদের প্রসূতি মা ও নবজাতককে বাঁচানোর জন্য তারুণ্যের শরণাপন্ন হোন। তারুণ্যের স্বেচ্ছাসেবীগণ তাৎক্ষণিক রক্ত দিতে ছুটে আসেন। ধর্ম-বর্ণ, ধনী-দরিদ্র—কোনো পরিচয়ই এখানে বাধা হয় না। ফ্রি রক্তদান ছাড়াও, প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থদের সাহায্যে সামর্থানুযায়ী হাত বাড়িয়ে দেয় ‘তারুণ্য’। এরই ধারাবাহিকতায় শীতবস্ত্র বিতরণের কাজটিও আমরা প্রতি বছর করে থাকি। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক তাইয়েব হোসেন জনি বলেন, অবারিত সম্ভাবনা নিয়ে জাগ্রত তারুণ্য—এই স্লোগানকে সামনে রেখে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল মেধাবী ও আত্মপরিচয়ে বলিয়ান তরুণ ২০০৯ সালে এই সংগঠনটি গড়ে তোলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক ও স্বেচ্ছাসেবী এই সংগঠনটি সেই থেকে নানা ধরণের জনকল্যাণ মূলক কাজ করে আসছে। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও সংগঠনটির উপদেষ্টা অধ্যাপক ডক্টর মো. মাহবুবররহমান বলেন, ক্যাম্পাসের বাইরে যেভাবে কাজ করছে ‘তারুণ্য’, ঠিক একইভাবে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবারের ভেতরেও কাজ করছে তারা। অর্থের অভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আটকে থাকা শিক্ষার্থীকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় তারুণ্যের স্বেচ্চাসেবীরা, একইভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আত্মউন্নয়নের জন্য ইয়ুথ লিডারশীপ ট্রেনিংসহ আয়োজন করে থাকে বিভিন্ন সেমিনার-সিম্পোজিয়াম। তরুণদের শিল্প-সাহিত্য ও বইমুখী করতে ইতোমধ্যে সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করেছে একটি পাঠাগার। এসব নন্দিত কাজের জন্য এখানকার মানুষের আস্থা ও ভালবাসার সংগঠন হয়ে উঠেছে ‘তারুণ্য’।

Advertisment ad adsense adlogger