ইবির সিন্ডিকেটে নতুন ৪ সদস্য, স্থান পেয়েছেন সদ্য বিদায়ী সফল প্রক্টর অধ্যাপক মাহবুবর রহমান

স্টাফ রিপোর্টার
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি উপর থেকে- (ড. মাহবুবর রহমান-ড. অরবিন্দু সাহা) নিচ থেকে- (ড. তপন কুমার জোর্দ্দার-শামীম মুহাম্মদ আফজাল) ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটে নতুন চারজন সদস্য মনোনিত হয়েছেন। রবিবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আব্দুল লতিফ। বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪৩তম সিন্ডিকেট সভায় সিদ্ধান্ত মতাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারী তাদেরকে সিন্ডিকেট সদস্য হিসেবে মনোনয়ন করেন। এবিষয়ে এস এম আব্দুল লতিফ বলেন, পূর্বের চার সদস্যের মেয়াদ শেষ হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪৩তম সিন্ডিকেট সভায় আগামী দুই বছরের জন্য তাদেরকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। নতুন সিন্ডিকেট সদস্যরা হলেন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ও সাবেক প্রক্টর ড. মাহবুবর রহমান (এমিনেন্ট ক্যাটাগরি, জেনারেল এডুকেশন), ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক শামীম মুহাম্মদ আফজাল (এমিনেন্ট ক্যাটাগরি, ইসলামিক এডুকেশন), জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান হল প্রভোস্ট ও ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. তপন কুমার জোর্দ্দার (প্রভোস্ট ক্যাটাগরি) এবং ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. অরবিন্দু সাহা (ডিন ক্যাটাগরি)। ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান এর আগে ২০০৯ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সেসময় প্রতিক্রিয়াশীলদের প্রবল বাধার মুখে তিনি হলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল ও বাংলাদেশের মানচিত্র স্থাপন করে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে আসেন। ড. মাহবুবর রহমান ২০১১ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত বিভাগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। একইসাথে ২০১৩ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র-উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া ২০১৪ প্রথম মেয়াদে প্রক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে ২০১৫ সালে ২য় মেয়াদে প্রক্টরের দায়িত্ব পান। এসময় তিনি ক্যাম্পাসে বিনাপ্রয়োজনে বহিরাগত প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। একইসাথে জঙ্গী, সন্ত্রাস ও মাদক বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেন। এছাড়া মাদক নির্মূলে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলসহ বিভিন্ন স্থানে সফলভাবে অভিযান চালিয়ে ব্যাপক প্রসংশা কুড়ান। ক্যাম্পাসে সিসি ক্যামেরা স্থাপনসহ নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা বলয় তৈরী করে ইবি পরিবারে দৃষ্টান্ত তৈরী করেছেন। দুর্ণীতির বিরুদ্ধে বর্তমান প্রশাসনের গৃহীত পদক্ষেপগুলোর প্রায় প্রতিটির অনুসন্ধানি রির্পোটে তাঁর ভুমিকা প্রসংশিত হয়েছে। সর্বশেষ গত রবিবার তিনি সিন্ডিকেটে সদস্য হিসেবে মনোনিত হয়েছেন। শামীম মুহাম্মদ আফজাল ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্বরত আছে। এছাড়া অধ্যাপক ড. অরবিন্দু সাহা ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন হিসেবে দায়িত্বরত আছেন। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় আইন-১৯৮০ এর ১৯ (১) ধারা অনুযায়ী আগামী ২ বছরের জন্য তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য হিসেবে মনোনিত হয়েছেন।

Advertisment ad adsense adlogger