ভেড়ামারায় সাবেক ইউপি সদস্য কর্তৃক এক কিশোরী ধর্ষনের শিকার

dorson

আরাফাত ইসতিয়াক অভিঃ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ধরমপুর ইউনিয়ন পরিষদ’র সাবেক ইউপি সদস্য কর্তৃক এবার ধর্ষনের শিকার হয়েছে ১৩ বছরের এক কিশোরী। ওই লম্পট বজলুর রহমান ওরফে বজু মেম্বার রাতের অন্ধকারে ঘরে প্রবেশ করে কিশোরীর মুখ আটকিয়ে ধরে পাশের গোয়ালঘরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষন করে ফেলে রেখেযায়। ভোর রাতে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপেক্স ভর্তি করে।সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তার অবস্থা আশংকাজনক বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছে। ওই কিশোরী ধরমপুর এএসকেএমপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর মেধাবী ছাত্রী।ধর্ষনের শিকার ওই কিশোরীর দাদা মল্লিক জানিয়েছে, গভীর রাতে ধর্ষক বজু মেম্বার স্বশরীরে এসে আমাকে সংবাদ দিয়ে জানায় তোর নাতির ঘরে অন্য ছেলে প্রবেশ করেছে। এরপর নাতির খোঁজ খবর করে নাতিকে আর পাইনি। এরপর আবারও ধর্ষক বজু মেম্বারের কাছে গেলে সে বলে গোয়ালঘর এলাকায় খোঁজ করো পাবে।তার কথামতই গোয়ালঘরে নাতিকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করি। ধর্ষনের শিকার ওই কিশোরী হাসপাতালের বেডে সাংবাদিকদের জানায়,দীর্ঘদিন ধরেই ধরমপুর ইউনিয়ন পরিষদ’র সাবেক ইউপি সদস্য লম্পট বজলুর রহমান ওরফে বজু মেম্বার আমাকে উত্যক্ত করে আসছিল।রাতে আমার মুখ চেপে ধরে নিয়ে যাওয়ার আগেই আমি তাকে চিনতে পারি। এরপর আমাকে অজ্ঞান করে কোথায় নিয়ে যায় তা আমি জানি না। তার পিতা কুদ্দুসআলী জানিয়েছেন, প্রভাবশালী মেম্বার বজু। সেই আমার মেয়েকে রাতে অন্ধাকারে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষন করে ফেলে রেখে যায়।তার অবস্থা বর্তমানে আশংকাজনক।ভেড়ামারা থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) আতিকুর রহমান জানিয়েছেন,গুরুত্বর অসুস্থ এবং সংজ্ঞাহীন অবস্থায় ওই কিশোরীকে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পুলিশ প্রাথমিক তদন্ত শেষ করে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

2016-04-17T01:30:33+00:00April 17th, 2016|অন্যান্য|
Advertisment ad adsense adlogger