কুষ্টিয়ার মিরপুরে যুবলীগের অফিস ভাংচুরের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে শাহিন (২৫) নামের একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধসহ আরো ৬ জন আহত হয়েছেন। আহতরা কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা নিয়েছেন।

আহতদের মধ্যে আতিয়ার রহমান (৪০), শাহার আলী (৩৫), সাইদুল ইসলামের (৪২) নাম জানা গেছে। রোববার বিকালে উপজেলার আমলা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শাহার আলীর ছেলে শাহিন, আনোয়ারুল ইসলাম মালিথার সমর্থক বলে জানা গেছে।

মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে আমলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম মালিথার সমর্থকরা স্থানীয় যুবলীগ অফিস ভাংচুর করে। এসময় দুটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়।

এ ঘটনার পরে উপজেলা চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিন গ্রুপ ও আমলা চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম মালিথার গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে গুলিবিদ্ধসহ ৭জন আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে শাহিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করেছে। এ ঘটনায় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক রয়েছে।