মানুষের দানের করা টাকা দিয়ে তৈরি হয় পুরো একটি শহর।আর এই শহরের প্রতিটি বাড়ি তৈরি হয়েছে লাল রঙের কাঠ দিয়ে। এটি বিশ্বের বৃহত্তম বৌদ্ধ গন্তব্য স্থান। চীনের চেংদু প্রদেশ থেকে ৩৭০ মাইল দূরে অবস্থিত লারুঙ্গ গার শহর। এখন এই শহরটি হলো ৪০ হাজারেরও বেশি বৌদ্ধ সন্ন্যাসী ও সন্ন্যাসীনেদের বাসস্থান। এই শহরটি তৈরি হয়েছে ১২,৫০০ ফুট উঁচুতে। সেখানে বৌদ্ধ সন্ন্যাসীদের কঠিন আবহাওয়ার সম্মুখীন হতে হয়। এখানে লাল কাঠ দিয়ে তৈরি বাড়িগুলি এমনভাবে পরস্পরের সাথে লেগে রয়েছে যে দূর থেকে মনে হবে লাল রঙের সমুদ্রের স্রোত। এখানে বৌদ্ধ সন্ন্যাসী ও সন্ন্যাসীনিরা কলেজের কাছাকাছি থাকেন। শহরের বাড়িগুলি তাঁদের বয়স এবং লিঙ্গের ভিত্তিতে ভাগ করা হয়েছে। এই বাড়িগুলিতে রয়েছে তিনটি করে ঘর। যেখানে সন্ন্যাসীরা একসাথে বাথরুম ব্যবহার করেন। বিশ্বের থেকে আলাদা হয়ে থাকা এই শহরে পৌঁছাতে হলে আপনাকে চীনের চেংদু থেকে ২০ ঘণ্টার যাত্রা করতে হবে। এখানে টিভি দেখা নিষিদ্ধ। এখানের সন্ন্যাসীরা একাডেমিতে হওয়া বক্তৃতা, শিক্ষা ও প্রার্থনার সুবিধা নিতে পারবেন। ফটোগ্রাফার ওয়ানসান লুক ২০ ঘণ্টা ভ্রমণ করে এখানে পৌঁছে এই গ্রামের ছবি নিজের ক্যামেরায় বন্দি করেছেন। ৩৪ বছরের লুক জানিয়েছেন, লারুঙ্গে দুটি ছোট অতিথিশালা রয়েছে। কিন্তু সেই দুটি ভর্তি থাকার জন্য তিনি প্রবেশদ্বারের কাছে ছিলেন। তিনি দুদিন ধরে সেই শহরে ছিলেন। সেখানের সমস্ত অনুষ্ঠানে অংশগ্রণ করেন। তিনি জানিয়েছেন, সেখানে সকলকে সম্মান করা হয়। এখানে মানুষ দান করা টাকা এবং ছোট ব্যবসা করে জীবনযাপন করেন। লুক বলেছেন, এখানে টিভি দেখা নিষিদ্ধ এবং স্মার্টফোনের ব্যবহারের অনুমতিও খুব মুশকিল করে পাওয়া যায়।