Home2018-11-19T15:09:49+00:00
এইমাত্র পাওয়া
Homeএবার আরও নির্ভুল অনুবাদ করবে গুগল ট্রান্সলেটপাঁচ বিষয়ে কখনো ই-মেইল করবেন নাএকাদশ জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে জাবি ছাত্রলীগের গ্রাফিতি অঙ্কননোবেলের অর্থে হাসপাতাল করবেন নাদিয়া৪০০ দিন পর খোঁজ মিলল সৌদি ধনকুবেরেরফিলিস্তিনকে মুক্ত করার ঘোষণা হামাসেররামাল্লায় ইসরাইলি সেনার গুলিতে ফিলিস্তিনি কিশোর নিহতজেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী স্বীকৃতি অস্ট্রেলিয়ারমানবিজে অভিযান চালাবে তুরস্ক: এরদোগানবাংলাদেশের সঙ্গে রেল যোগাযোগ বাড়াতে চায় ভারতকলচার্জ বাড়ানোর ওপর হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা১০ লাখ টাকায় নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন!পিকআপের অতিরিক্ত চাকার ভেতর থেকে ইয়াবা উদ্ধারজাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশনির্বাচনী পরিবেশ নিয়ন্ত্রণে আছে, ভোট সুষ্ঠু হবে: সিইসিনির্বাচনকে কেন্দ্র করে এখন পর্যন্ত দেশে যেসব হামলার ঘটনা ঘটেছে তা সবই লন্ডনে বসে তারেক রহমানের পরিকল্পনার ফসল— কুষ্টিয়ায় মাহবুব উল আলম হানিফনিজেদের হামলার ছকেই মাহবুবউদ্দিন খোকন গুলিবিদ্ধ: কাদেরবীর শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

অন্যান্য

রাজনীতি

ইতিহাস ও ঐতিহ্য

বিশেষ প্রতিবেদন

কৃষি সমাচার

ফিলিস্তিনকে মুক্ত করার ঘোষণা হামাসের

ইহুদিদের জবরদখল থেকে ফিলিস্তিনকে মুক্ত করা এবং বায়তুল মোকাদ্দাসকে রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠন করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস।

৩১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে হামাস এক বিবৃতিতে এ অঙ্গীকার ব্যক্ত করে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গাজায় সংগঠনটি শুক্রবার এক বিশাল সমাবেশ করে। খবর সংবাদ সংস্থা আনাদোলুর।

সশস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড থেকে দখলদার ইসরাইলকে হটিয়ে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে ১৯৮৭ সালের ১৪ ডিসেম্বর হামাস প্রতিষ্ঠিত হয়।

বিবৃতিতে হামাস আরও বলে, বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা শরণার্থীদেরকে তাদের মাতৃভূমিতে ফিরিয়ে আনবেন তারা। এজন্য তারা ফিলিস্তিনি সংগঠনগুলোর মধ্যে মতবিরোধ নিরসন করে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন।

হামাস বলছে, সব আন্তর্জাতিক আইনে দখলদার ইসরাইল সরকারের মোকাবিলায় ফিলিস্তিনি জনগণের অকাট্য অধিকারকে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। কাজেই সে অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে ২০১১ সালের কায়রো চুক্তি অনুযায়ী নিজেদের মধ্যে ঐক্য ও সংহতি জোরদার করতে ফিলিস্তিনি সংগঠনগুলোর প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

ফিলিস্তিনি জনগণ গত ছয় মাস ধরে নিজ মাতৃভূমিতে ফিরে যাওয়ার অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে যে বিক্ষোভ মিছিল করে আসছে বিবৃতিতে তার প্রতি পূর্ণ সমর্থন ব্যক্ত করা হয়।

একইসঙ্গে যেসব আরব দেশ ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করছে বিবৃতিতে তার তীব্র নিন্দা জানায় হামাস।

রামাল্লায় ইসরাইলি সেনার গুলিতে ফিলিস্তিনি কিশোর নিহত

দখলদার ইসরাইলি সেনাবাহিনীর গুলিতে একটি ফিলিস্তিনি কিশোর নিহত হয়েছে।

পশ্চিম তীরের রামাল্লায় শুক্রবার বিক্ষোভের সময় ইসরায়েলি সেনারা গুলি করে ওই কিশোরককে হত্যা করে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা এ তথ্য জানিয়েছে।

ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছে, নিহত কিশোরের নাম মাহমুদ নাখলেহ (১৮)।

শরণার্থী শিবিরে ইসরাইলি সেনাদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের সময় পাকস্থলীতে গুলিবিদ্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়।

ফিলিস্তিনি বার্তা সংস্থা মান জানায়, গুলির পর ইসরাইলি সেনারা নাখলেহকে আটকের চেষ্টা করে। কিন্তু ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্যকর্মীরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে সক্ষম হয়। হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত হয়।

তবে কিশোরের মৃত্যু সম্পর্কে ইসরাইলি সেনাবাহিনীর তাৎক্ষণিক কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী স্বীকৃতি অস্ট্রেলিয়ার

ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে সবচেয়ে বিতর্কিত ও প্রতিযোগিতাপূর্ণ অঞ্চল পশ্চিম জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সরকার।

শনিবার সিডনিতে সাংবাদিকদের অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেন, অস্ট্রেলিয়া এখন পশ্চিম জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিল। সূত্র: বিবিসি

অস্ট্রেলিয়ার রাজনীতিবিদ ও দেশটির মিত্র হিসেবে পরিচিত অন্যান্য রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে পরামর্শ করে এমন ঘোষণা স্কট মরিসন এমন ঘোষণা দিয়েছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

পশ্চিম বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্কট মরিসন বলেছেন, যতক্ষণ না পর্যন্ত একটা শান্তিপূর্ণ অবস্থা তৈরি না হয় ততক্ষণ পর্যন্ত তেল আবিব থেকে অস্ট্রেলিয়ান দূতাবাস সরানো হবে না।

তবে মরিসন আরও বলেন, পূর্ব জেরুজালেমকে রাজধানী করে ফিলিস্তিনিদের রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার আকাঙ্খার স্বীকৃতিও দেবে অস্ট্রেলিয়া।

পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তেল আবিব থেকে অস্ট্রেলিয়ান দূতাবাস সরিয়ে পশ্চিম জেরুজালেমে স্থানাস্তর করা হবে বলেও জানান মরিসন।

প্রসঙ্গত. ২০১৭ সালের ৬ ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার ঘোষণা দিলে বিশ্বজুড়ে বিষয়টি সমালোচিত হয়।

এরপর চলতি বছরের মে মাসে মার্কিন দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে স্থানান্তর করা হয়।

মানবিজে অভিযান চালাবে তুরস্ক: এরদোগান

যুক্তরাষ্ট্র যদি ওয়াইপিজি কুর্দিশ মিলিশিয়াদের সরিয়ে না নেয়, তবে তুর্কি বাহিনী সিরীয় শহর মানবিজে ঢুকে যাবে বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।

এতে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে ন্যাটো মিত্র যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তুরস্কের নতুন উত্তেজনা দেখা দিতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

চলতি সপ্তাহে আঙ্কারা জানিয়েছে, ওয়াইপিজি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে নতুন অভিযানে নামবে তুরস্কের সেনাবাহিনী।

শুক্রবার ইস্তানবুলে দেয়া এক ভাষণে এরদোগান বলেন, সিরিয়ার ফোরাত নদীর পূর্ব উপকূলে শান্তি প্রতিষ্ঠায় তুরস্ক দৃঢ়প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

সিরিয়া সংকট নিয়ে তুরস্ক ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে টানাপড়েন চলছে। সেখানে আইএস জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ওয়াইপিজি যোদ্ধাদের সামরিক সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

কুর্দিশ পিপলস প্রটেকশন ইউনিটস বা ওয়াইপিজিকে একটি সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে আসছে তুরস্ক। দেশটি বলছে-এটি মূলত নিষিদ্ধ কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টিরই (পিকেকে) একটি শাখা মাত্র।

১৯৮৪ সাল থেকে এ সংগঠনটি তুরস্কের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে আসছে। তুরস্কের মিত্র পশ্চিমা দেশগুলোও পিকেকে-কে একটি সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকাভুক্ত করেছে।

বৃহস্পতিবার উত্তর সিরিয়ার আফরিনে কুর্দি মিলিশিয়াদের সঙ্গে গুলিবিনিময়ে এক তুর্কি সেনা নিহত হয়েছেন।

চলতি বছরের মার্চে কুর্দি যোদ্ধাদের কাছ থেকে আফরিনকে মুক্ত করে তুর্কি সেনাবাহিনী। এতে সিরীয় বিদ্রোহীরা আঙ্কারাকে সমর্থন দিয়েছিল।

তবে যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ায় এটি হবে তুরস্কের তৃতীয় কোনো অভিযান। আইএস ও ওয়াইপিজি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে এর আগে ২০১৬ সালের আগস্টে ও চলতি বছরের জানুয়ারিতে দুটি অভিযান চালিয়েছিল তুরস্ক।

পেন্টগন মুখপাত্র কমান্ডার সেন রবার্টসন বলেন, সেখানে নতুন করে একতরফা যে কোনো অভিযান গভীর উদ্বেগের ও অগ্রহণযোগ্য।

বাংলাদেশের সঙ্গে রেল যোগাযোগ বাড়াতে চায় ভারত

বাংলাদেশের সঙ্গে রেলসহ সব ধরনের পরিবহন যোগাযোগ আরও বাড়াতে চায় ভারত। পশ্চিমবঙ্গের কুচবিহার থেকে বাংলাদেশের পার্বতীপুর দিয়ে কলকাতা যাওয়ার রেলরুটটি নতুন করে চালু হবে।

রেলপথ আরও বাড়ানোর বিষয়ে লেখা এক চিঠিতে এ কথা জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। কুচবিহারের গিতলদহ থেকে কলকাতা রুটের রেল চালু করা নিয়ে সংসদ সদস্য পার্থপ্রতিম রায়ের এক চিঠির জবাবে ওই চিঠি লেখেন তিনি। চিঠিটি ৫ ডিসেম্বর লেখা হয়। শনিবার এ খবর জানিয়েছে দ্য হিন্দু।

সংসদ সদস্য পার্থপ্রতিম রায়কে উদ্দেশ করে সুষমা বলেছেন, ‘ভারত সরকার বাংলাদেশের সঙ্গে সব ধরনের পরিবহন যোগাযোগ পুনরায় চালুর ব্যাপারে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’ দুই পৃষ্ঠার চিঠিতে গিতলদহ-কলকাতা রুটের রেললাইনের বর্তমান অবস্থা নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেন, সুষমা। তিনি জানান, কিছু স্থানে মিটার গেজকে ডুয়াল গেজে রূপান্তর করতে হবে। পার্থপ্রতিম রায় দ্য হিন্দুকে বলেন, ‘১৯৫৫ সাল পর্যন্ত গিতলদহ থেকে বাংলাদেশের পার্বতীপুর হয়ে কলকাতা পর্যন্ত রুটে রেল চালু ছিল।

কিন্তু পরে এটি বন্ধ হয়ে যায়।’ তিনি বলেন, রুটটি চালু হলে ভারতের উত্তরাঞ্চলের যাত্রীরা খুব কম সময়ে কলকাতা পৌঁছাতে পারবে। বাংলাদেশের সঙ্গে রেল যোগাযোগ বাড়লে ভারতের বাকি অংশের সঙ্গে উত্তরপূর্ব ভারতের যোগাযোগ সহজ হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। বর্তমানে সিঙ্গাবাদ-রহনপুর, গেদে-দর্শনা, পেট্রাপোল-বেনাপোলের মধ্যদিয়ে ট্রেন চলাচল করে। আর বাংলাদেশ ও ভারত উভয় দেশই রাধিকাপুর-বিরল, চিলাহাটি-হলদিবাড়ি, ফেনী-বেলুনিয়া ও শাহবাজপুর-মহিশ্মশানের মধ্যে রেলপথ চালুর উদ্যোগ নিয়েছে। পাশাপাশি আখাউড়া ও আগরতলার মধ্যে নতুন করে একটি রেলপথ তৈরি করা হচ্ছে।

কলচার্জ বাড়ানোর ওপর হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

পুনরায় মোবাইল ফোনের কলচার্জ বাড়ানো ও কলড্রপে টাকা কাটার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের অধিকার সুরক্ষায় বিবাদীদের ব্যর্থতা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না- এ মর্মে রুলও জারি করেছেন আদালত।
এছাড়া অনাবশ্যক ক্ষুদে বার্তা পাঠানো কেন বন্ধ করা হবে না রুলে তাও জানতে চাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি মোবাইলের বর্তমান কলরেট পর্যালোচনার জন্য বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট বেঞ্চ অন্তর্বর্তীকালীন আদেশটি দেন। জনস্বার্থে আনা এ রিট পিটিশনার ল’ রিপোর্টার্স ফোরামের (এলআরএফ) সদস্য সাংবাদিক মেহেদী হাসান ডালিম এ কথা জানান। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমাতুল করিম। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে টেলিযোগাযোগ সচিব, বিটিআরসি চেয়ারম্যান, সেক্রেটারি, মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন লিমিটেড, এয়ারটেল লিমিটেড, রবি আজিয়াটা লিমিটেড, বাংলা লিংক লিমিটেড ও টেলিটক কর্তৃপক্ষকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার জনস্বার্থে হাইকোর্টে রিট আবেদনটি দায়ের করা হয়। এটি দায়ের করেন আইন সাংবাদিকদের সংগঠন ল’ রিপোটার্স ফোরাম সদস্য সিনিয়র সাংবাদিক এম বদিউজ্জামান মেহেদী হাসান ডালিম, মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি মহিউদ্দিন আহমদ ও সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী অ্যাড. রাশিদুল হাসান।

মেহেদী হাসান বলেন, এমনিতেই পার্শ্ববর্তী দেশগুলোর তুলনায় আমাদের দেশে মোবাইল কলচার্জ বেশি। এরপর গ্রাহকের মতামত না নিয়ে চলতি বছরের আগস্ট মাসে অতিরিক্ত কলরেট চাপিয়ে দেয়া হয়েছে, যা কোটি কোটি গ্রাহকের অধিকারের পরিপন্থী ও বেআইনি। এই প্রেক্ষিতে রিট পিটিশনারদের পক্ষ থেকে ১০ ডিসেম্বর বিবাদীদের লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়। নির্ধারিত সময়ে নোটিশের জবাব না পেয়ে জনস্বার্থে হাইকোর্টে রিট করি।

Advertisment ad adsense adlogger