কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের অভিষেক অনুষ্ঠিত কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগ’র অভিষেক সারাদেশের জন্য একটি অনুকরণীয় হয়ে থাকবে ——-সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি ॥ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মানেই ইতিহাস। স্বাধীনতার ইতিহাস, অধিকার আদায়ের ইতিহাস। কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগ অভিষেক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মাহবুবউল আলম হানিফ এক নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করলেন। আওয়ামীলীগ ইতিপূর্বে কখনওই এরকম জমকালো আয়োজনে জেলা আওয়ামীলীগের অভিষেক অনুষ্ঠান করেনা। সে ক্ষেত্রে এই জেলার অভিষেক এখন সারাদেশে জেলায় জেলায় অনুকরণীয় হবে। গতকাল কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের অভিষেক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সরকারের জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এমপি। শনিবার বিকেল ৪ টায় কুষ্টিয়া শহরে বঙ্গবন্ধু মার্কেটে জেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত অভিষেক অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন, অধ্যাপক ইউসুফ আলীর লেখা ঘোষণাপত্র ১৭ এপ্রিল মুজিবনগরে পাঠ করা হয়েছিলো। সেখানে স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশের পূর্ণাঙ্গতা রয়েছে। যারা মুজিবনগর দিবস পালন করে না তারা বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে স্বীকার করে না। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কুষ্টিয়ার কৃতি সন্তান মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক এমপি, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক মন্ত্রী লে.কর্ণেল (অব:) ফারুক খান এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা: বদিউজ্জামান ভূঁইয়া ডাবলু, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদ সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান। আলোচনা শেষে কুষ্টিয়ার নবগঠিত ৭০ সদস্যের কমিটির প্রত্যেককে ফুলের তোড়া দিয়ে বরণ করে নেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামসহ কেন্দ্রীয় ও জেলার নেতৃবৃন্দ। নবগঠিত কমিটির যারা উপস্থিত ছিলেন, । এ্যাড. আফজাল হোসেন, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী। সভাপতিত্ব করেন ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব রবিউল ইসলাম, মিসেস লায়লা আরজুমান বানু এমপি, শেখ গিয়াস উদ্দিন আহমেদ মিন্টু, জাহিদ হোসেন জাফর, চৌধুরী মুরশেদ আলম মধূ, হাবিবুল্লাহ, বেগম নুরজাহান মিনা, মতিয়ার রহমান মজনু। সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার ঘোষ, মনিরুজ্জামান লালন, প্রকৌশলী ফারুক-উজ জামান। আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. হারুন অর রশীদ, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক বাবু রবীন্দ্রনাথ সেন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব, দপ্তর সম্পাদক আলহাজ্ব তরিকুল ইসলাম মানিক, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব সেলিনুর রহমান, প্রচার সম্পাদক এ্যাড. হাসানুল আসকার হাসু, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মীর শওকত আলী বকুল, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সুফি ফারুক ইবনে আবু বকর, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা এ্যাড. শীলা বসু, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মানিক কুমার ঘোষ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আমজাদ হোসেন রাজু, শ্রম সম্পাদক রাজ বাবুল রাজা, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আমিরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা: রবিউল হক খান। সাংগঠনিক সম্পাদক ডা: আমিনুল হক রতন, রুহুল আজম, শেখ হাসান মেহেদী। উপ-দপ্তর সম্পাদক সাহাজ্জুল হোসেন, উপ-প্রচার সম্পাদক আব্দুল লতিফ দিঘা, কোষাধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম রবি। সদস্য : এ্যাড. আ স ম আখতারুজ্জামান মাসুম, আলহাজ্ব আমিরুল ইসলাম, তাইজাল আলী খান, আব্দুল মান্নান খান, এ্যাড. সরওয়ার জাহান বাদশাহ, রফিকুল আলম চুন্নু, এ্যাড. শরিফ উদ্দিন রিমন, সামসুজ্জামান আরুন, গাজী আনিসুর রহমান, মাযহারুল ইসলাম সুমন, আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান মিঠু, আলহাজ্ব এ্যাড. আব্দুল হালিম, কামারুল আরেফিন, আখতারুজ্জামান বিশ্বাস, বাবুল আক্তার, গোলাম মোস্তফা, আতাউর রহমান আতা, আনোয়ারুজ্জামান মজনু চেয়ারম্যান, প্রভাষক তারিকুল ইসলাম, এ্যাড. জিয়াদুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম তসর, আলহাজ্ব শামিমূল ইসলাম ছানা, অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক রাজা, শরীফুল ইসলাম, লিয়াকত আলী, আব্দুর রউফ পদ্মা, সালাহ উদ্দিন তারেক।

Advertisment ad adsense adlogger