দলীয় প্রতীকে ইউপি নির্বাচন তৃণমূলে সন্ত্রাস ঢুকিয়েছে : ফখরুল

কুষ্টিয়া নিউজ ডেস্ক ॥ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দলীয় প্রতীকে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন দিয়ে সরকার তৃণমূল পর্যায়ে সন্ত্রাস ঢুকিয়ে দিয়েছে। বিভক্ত করে ফেলা হয়েছে গ্রামের মানুষ ও সমাজকে।
গতকাল সোমবার বেলা দুইটার দিকে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার নারগুন ও বেগুনবাড়িতে ইউপি নির্বাচন ঘিরে সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন ও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের সমবেদনা জানানোর সময় মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।
মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, ‘ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জোর করে ভোট চুরি করে তাদের পক্ষে ফলাফল নিয়ে গেছে। তারা শুধু এখানেই ক্ষান্ত হয়নি। পরবর্তী সময়ে তাদের সন্ত্রাসীরা প্রতিপক্ষ বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা চালিয়েছে এবং তাদের বাসা-ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে আক্রমণ করে ভাঙচুর করেছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।’
বিএনপির মহাসচিবের অভিযোগ, ‘এবারের ইউপি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আবার প্রমাণিত হয়েছে আওয়ামী লীগের অধীনে ও বর্তমান নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় কোনো নির্বাচনই সুষ্ঠু হতে পারে না। আসলে এই দল গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। তারা বিশ্বাস করে, এ দেশ শাসনের অধিকার শুধু তাদেরই আছে। অন্য কোনো দল এ দেশ পরিচালনার অধিকার রাখে না। এবার তারা গণতন্ত্রের একটা লেবাস পরে একদলীয় শাসনব্যবস্থা বাকশাল প্রবর্তন করতে যাচ্ছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ কখনই একদলীয় শাসনব্যবস্থা মেনে নেবে না। এ দেশের মানুষ গণতন্ত্রের বিকল্প কোনো ব্যবস্থাকে মেনে নেবে না। তারা বরাবরই গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছে। এখনো সংগ্রাম করে চলেছে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে, তার মধ্য দিয়ে সন্ত্রাস, গণতন্ত্রহীনতা, দুর্নীতির বিরুদ্ধে এ দেশের জনগণ জবাব দেবে।’
প্রস্তাবিত বাজেট সম্পর্কে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এটা দুর্ভাগ্য যে বাংলাদেশ একটা লুটপাটের স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এবারের বাজেটের পরিধি ৩০ ভাগ বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু তারা কীভাবে বাজেটের অর্থ সংগ্রহ করে বাজেট বাস্তবায়ন করবে, সে সম্পর্কে কোথাও নির্দেশনা নেই। এ বাজেট বাড়ানোর প্রধান লক্ষ্য হলো সরকারি অর্থ ব্যয় করে দুর্নীতি ও লুটপাট করা।’
দেশের আইনশৃঙ্খলা সম্পর্কে বিএনপির এই নেতা বলেন, দেশে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করা হয়েছে। প্রতিদিন দেশের মানুষ খুন হচ্ছে। গতকাল একজন এসপির স্ত্রীকে প্রকাশ্যে খুন করা হয়েছে। এমন সন্ত্রাসের মধ্য দিয়ে তারা দেশকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তিনি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের প্রতি অনুরোধ করে বলেন, সন্ত্রাসের রাস্তা পরিহার করে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ তৈরি করুন। অন্যথায় জনগণই আপনাদের দাঁতভাঙা জবাব দেবে।

এনএনবি-৫০

2016-06-07T20:34:22+00:00June 7th, 2016|রাজনীতি|
Advertisment ad adsense adlogger