নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ২০০৮ সালের এই দিনে (১১ জুন) প্রায় ১১ মাস কারাভোগের পর সংসদ ভবন চত্বরে স্থাপিত বিশেষ কারাগার থেকে মুক্তি পান বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা। সেনাসমর্থিত এক-এগারোর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৭ সালের ১৬ জুলাই গ্রেপ্তার হন শেখ হাসিনা। গ্রেপ্তারের পর কারাগারের অভ্যন্তরে শেখ হাসিনা অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখন বিদেশে চিকিৎসার জন্য তাকে মুক্তি দেওয়ার দাবি ওঠে বিভিন্ন মহল থেকে। একপর্যায়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার শেখ হাসিনাকে মুক্তি দেয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষ্যে কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগ শনিবার বিকেলে জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ের মিলনায়তনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করে। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান। বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক বাবু স্বপন কুমার ঘোষ, সহ সভাপতি শেখ গিয়াস উদ্দিন মিন্টু, চৌধুরী মুরশেদ আলম মধু, ডা, আমিনুল হক রতন, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বিজ্ঞ জিপি এ্যাড. আ.স.ম আখতারুজ্জামান মাসুম, শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি তাইজাল আলী খান, জেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক খন্দকার ইকবাল মাহমুদ, কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক লিয়াকত আলী, শ্রমিকলীগের সভাপতি গোলাম মোস্তফা, জেলা যুবলীগের আহবায়ক রবিউল ইসলাম। এসময় অন্যান্যের মধ্যে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি নুরজাহান মিনা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান লালন, তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক রবীন্দ্রনাথ সেন, আইন সম্পাদক এ্যাড. হারুন অর রশীদ, দপ্তর সম্পাদক হাজী তরিকুল ইসলাম মানিক, ধর্মীয় সম্পাদক হাজী সেলিনুর রহমান, , বন ও পরিবেশ সম্পাদক শওকত হোসেন বকুল, উপ-প্রচার সম্পাদক আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম.এল.কবীর তুহিন, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আফরোজা আক্তার ডিউ, সেলিনা হক আয়না, দীনা লায়লা, মিনু রহমান, শহর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক জেড.এম. সম্রাট, শহর শ্রমিকলীগের সভাপতি আল আসাদ রেমন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আমিনুর রহীম পল্লব, সালেহীন সেলিম, বঙ্গবন্ধু কিশোর সংসদের জেলার সভাপতি মাহমুদ হাসান, সাধারণ সম্পাদক মাহাতাব উদ্দিন লালন প্রমুখ। সভাপতির বক্তব্যে কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জননেতা আলহাজ সদর উদ্দিন খান বলেন, সেনা সমর্থিত ওয়ান-ইলেভেনের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৭ সালের ১৬ জুলাই আওয়ামীলীগ সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে গ্রেফতার করার দীর্ঘ প্রায় ১১ মাস কারাভোগের পর ২০০৮ সালের ১১ জুন সংসদ ভবন চত্বরে স্থাপিত বিশেষ কারাগার থেকে মুক্তি পান জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং চিকিৎসার উদ্দেশ্যে বিদেশে পাঠানো হয়। দেশে এবং বিদেশে আওয়ামীলীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের ক্রমাগত চাপ, আপোসহীন মনোভাব ও অনড় দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সেসময় সেনাসমর্থিত ওয়ান-ইলেভেনের সরকার শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়। সেই বছর অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনে ব্যাপক জনসমর্থনে সরকার গঠণের পর থেকে এবং পরবর্তী মেয়াদেও নির্বাচিত হয়ে আজকের প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর আজন্ম লালিত স্বপ্ন দারিদ্রমুক্ত সুখী সুন্দর বাংলাদেশ গঠনে কাজ করে যাচ্ছেন। বক্তারা আরও বলেন, কুষ্টিয়ায় যে পরিমান উন্নয়নমুলক কর্মকান্ড সাধিত হয়েছে তা এর আগে কোন সরকারই এতটা উন্নয়নমুলক কাজ করতে পারেনি। ঈশ্বার্নিত হয়ে একটি পক্ষ বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ পরিবেশন করে আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও কুষ্টিয়া ৩ সদর আসনের সংসদ সদস্য মাহবুবউল আলম হানিফের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করতে চাচ্ছে। যা মোটেও উচিৎ নয়। আমরা সেই সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছি। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রচার সম্পাদক এ্যাড. হাসানুল আসকার হাসু। পরে দেশ ও জাতির কল্যানে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা শেষে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। আওয়ামীলীগের বিভিন্ন অঙ্গ ও সগযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।