মাহাতাব উদ্দিন লালন,কুষ্টিয়া,৬ই জুন, ২০১৬ ॥ কুষ্টিয়ায় “শিক্ষিত তরুণ প্রজন্মের স্বপ্নের প্লাটফর্ম আইসিটি ক্যারিয়ার ক্যাম্প ২০১৬” অনুষ্ঠিত হয়েছে । আজ কুষ্টিয়া সরকারী কলেজের ছাত্র মিলনায়তান হলে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) লিভারেজিং আইসিটি ফর গ্রোথ গভর্নেন্স (এলআইসটি) প্রকল্প আয়োজিত আইসিটি ক্যারিয়ার ক্যাম্প ২০১৬ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ রুপকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যকে সামনে রেখে সরকার একুশ শতকের উপযোগী দক্ষ মানব সম্পদ গড়ে তুলছে। সে লক্ষ্যে বিশ্বমানের প্রশিক্ষণে তথ্যপ্রযুক্তিতে প্রশিক্ষিত জনবল তৈরি করা হচ্ছে। দেশের শিক্ষিত তরুণ-তরুণীদের এ সুযোগকে কাজে লাগানোর জন্য এগিয়ে আসতে হবে।
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া সরকারী কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো: আমজাদ হোসেন, কুষ্টিয়া সরকারী কলেজের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. নূরুন নাহার, কুষ্টিয়া সরকারী মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ কাজী মানজুর কাদির, কুষ্টিয়া সরকারী মহিলা কলেজের পদার্থ বিজ্ঞান ও আইটি বিভাগের প্রভাষক সাইফুল ইসলাম, কুষ্টিয়া সরকারী মহিলা কলেজের আইটি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সাফিউল আজম, কুষ্টিয়া সরকারী কলেজের উপাধ্যক্ষ সমাজ বিজ্ঞান বিভাগ লাল মাহমুদ, কুষ্টিয়া সরকারী মহিলা কলেজের পদার্থ বিজ্ঞান ও আইটি বিভাগের প্রভাষক সাফিউল ইসলাম, ওমেন ইন ডিজিটাল; ইমপাওয়ারমেন্ট থ্রো টোকনোলজি ফাউন্ডার; অধুনা-এর সিইও আখিয়া খালিদা নিলা, এলআইসিটি প্রকল্পের পরামর্শক জনাব শাহাদাৎ ইসলাম। কলেজের বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী এই অনুষ্ঠানে যোগ দান করেন।
বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, সরকার ২০২১ সালের মধ্যে আইটি পেশাজীবির সংখ্যা বর্তমান সাত লাখ থেকে ২০ লাখে উন্নীত করতে চায়। এজন্য নেওয়া হয়েছে নানা কার্যক্রম। আইটি শিল্পের চাহিদা অনুযায়ী এলআইসিটি প্রকল্পের মাধ্যমে আইটিতে বিশ্বমানের প্রশিক্ষণে ৪৫ হাজার দক্ষ মানব সম্পদ গড়ে তুলছে। দেশব্যাপী প্রশিক্ষণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। এছাড়াও লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের মাধ্যমে ৫৫ হাজার ফ্রিল্যান্সার তৈরির প্রশিক্ষণ চলমান রয়েছে। বিসিসিতে অব্যাহতভাবে তথ্যপ্রযুক্তির নানা বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।
বক্তারা আরও বলেন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষিত তরুণ-তরুণীদের তথ্যপ্রযুক্তিতে প্রশিক্ষণ গ্রহণের জন্য এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ায় অবদান রাখতে হলে শিক্ষিত তরুণ-তরুণীদের তথ্যপ্রযুক্তিতে প্রশিক্ষিত হওয়া ছাড়া কোন বিকল্প নেই।
শাহাদাৎ ইসলামের পরিচালনায় প্যানেল আলোচনায় অন্যান্য বক্তারা আইটিতে আমাদের আগামী সম্ভাবনার কথা তুলে ধরে দেশের শিক্ষিত তরুণ-তরুণীদের আইসিটিতে ক্যারিয়ার গড়ার আহ্বান জানান।
অনলাইন কুইজে অংশ গ্রহণের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মধ্যে থেকে একজন ও অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে থেকে একজনকে একটি করে স্মার্ট মোবাইল ফোন পুরষ্কার হিসাবে দেওয়া হয়।