প্রতিদিনই আমরা কম বেশি গুগলে বিভিন্ন বিষয় খোঁজাখুঁজি করে থাকি। কিন্তু আমরা ক’জনই বা এই গুগলের সঠিক ব্যবহার জানি! এমন কিছু বিষয় রয়েছে যা গুগলে একদমই খোঁজাখুঁজি (সার্চ) করা উচিত নয়। আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনে আমরা সে সব কয়েকটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করে তা জেনে নিব। ১. নিজ নাম: এমন অনেকে রয়েছেন যারা গুগলে নিজের নাম লিখে সার্চ করে থাকেন। কিন্তু এর একটি মারাত্মক সমস্যাও রয়েছে। আপনি হয়তো সার্চ করে এমন কিছু খুঁজে পেলেন যা কী না একদমই অপ্রত্যাশিত। এতে করে আপনার দুশ্চিন্তা ও সমস্যা বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ২. সন্তান প্রসব: গর্ভবতী নারীরা অনেক সময় বাচ্চা প্রসবের বিষয় ও প্রক্রিয়াটি জানার জন্য গুগলে সার্চ করে জেনে নিতে চান। তবে এটি মোটেও ঠিক না। ফলে আগেই অনাকঙ্খিতভাবে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে দুর্ঘটনার মত ঘটনা ঘটতে পারে। ৩. রোগের লক্ষণ ও সমাধান: স্বাস্থ নিয়ে সকলেই কম বেশি সচেতন। সে জন্য প্রায় মানুষই স্বাস্থ বিষয়ে জানার জন্য রোগের লক্ষণ ও তার সমাধান বিষয়ে জানতে গুগলে সার্চ করেন। সার্চ করা ফলাফলগুলো পুরোপুরি সঠিক নাও হতে পারে। কেননা, ফলাফল দেয়া ওয়েবসাইটগুলো যে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ পরিচালনা করে থাকেন তার সত্যতা কোথায়? আর ভুল তথ্যের চিকিৎসা থেকে সাধারণ রোগটিও মৃত্যুর মত ভয়াবহ রোগে রূপ নিতে পারে। ৪. ক্যান্সার: সাধারণত ছোটখাটো রোগের সাথে ভয়াবহ অনেক রোগের লক্ষণেরই মিল পাওয়া যায়। মাথা ব্যথা, শারীরিক দুর্বলতা ও বমির মত অনেক সমস্যার সমাধানের জন্য গুগলে সার্চ করা হয়। গুগলে পাওয়া ফলাফল দেখে ক্যান্সারের লক্ষণের সাথে মিল পেয়ে বিভ্রান্তি হয়ে ভুল চিকিৎসা জীবননাশের কারণ হতে পারে। ৫. সন্ত্রাসী কার্যক্রম: সন্ত্রাসীর মত অনেক কর্মকান্ড বিষয়ে যেমন, বোমা তৈরির প্রক্রিয়া, মোবাইল ফোনের নাম্বার ট্র্যাক ও ফেসবুকসহ বিভিন্ন ওয়েবসাইট হ্যাক করা বিষয়ে মানুষের আগ্রহ থাকে। কিন্তু অনেকেই হয়তো জানেন না যে, দেশের আইন শৃঙ্খলা কতৃপক্ষ ও মাদক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা থেকে এসব সার্চ করা থেকে পরীক্ষণ চালিয়ে নজরদারি করেন। সংস্থাগুলোর কাছে সার্চ করা ডিভাইসগুলোর আইপি অ্যাড্রেস থেকে যায়। আর এতে খুব সহজেই সাধারণ মানুষসহ যে কেউই বিপদে পড়তে পারেন।