অপোর সিইও, টনি চেন কোয়ালকম এর সাথে ফাইভজি পাইওনিয়ারের ইনিশিয়েটিভে পার্টনারশিপ এবং উন্নত বাজারগুলোতে প্রবেশের ঘোষণা দিলেন । সম্প্রতি চায়নায় কোয়ালকম টেকনোলজি দিবস ২০১৮ তে, জনপ্রিয আন্তর্জাতিক স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অপো ফাইভজি যুগের উদ্ভাবনী সব মোবাইল টেকনোলজি উদ্ভাবন করতে ফাইভজি পাইওনিয়ার ইনিশিয়েটিভে কোয়ালকম টেকনোলজির সাথে অংশীদার হবার ঘোষণা দিয়েছে। ফাইভজি পাইওনিয়ার ইনিশিয়েটিভের মাধ্যমে কোয়ালকম টেকনোলজি, বিশ্বব্যাপী ব্যবহারকারীদেরকে রেডিওফ্রিকোয়েন্সি ফ্রন্ট-এন্ড ফিল্ডের মতো ব্যাপক আকারের সমাধান প্রদানে অপোকে সম্পূর্ণ নতুন এই ফাইভজি মোবাইল ফোন অভিজ্ঞতা তৈরীতে সহায়তা করবে। অপোর সিইও, টনি চেন একটি প্যানেল ডিসকাশনে বিশ্বের মোবাইল প্রযুক্তির ভবিষ্যত এবং উন্নয়ন সম্পর্কে আলোচনা করেন এবং বলেন, “এই ফাইভজি মোবাইল নেটওয়ার্ক বিশ্বের মোবাইল ইন্ডাস্ট্রির কাঠামো পরিবর্তন করতে যাচ্ছে এবং ইন্টারনেট সংক্রান্ত বিষয়াদিতে মোবাইলফোন একটি মুখ্য অংশে পরিণত হবে। অতীত থেকেই অপো প্রযুক্তি উদ্ভাবনের দিকে মনোযোগ দেয় যা ফাইভজি সম্পর্কিত আরএ্যান্ডডি এর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভিত স্থাপন করেছে। ভবিষ্যতে অপো ফাইভজি এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মতো যুগান্তকারী সব প্রযুক্তিতে বিনিয়োগ অব্যাহত রাখবে এবং ব্যবহারকারীদের মূল চাহিদার উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন পণ্যে সেগুলো প্রয়োগ করবে”। তিনি আরো বলেন, “ ২০১৮ তে অপো, বিশ্ববাজারে তার প্রবেশের গতি আরো বৃদ্ধি করবে এবং জাপানের মতো উন্নত দেশগুলোতে বিশেষভাবে প্রবেশ করবে আধুনিক সব প্রযুক্তি এবং আরটিস্টিক ডিজাইনের মতো ফিচারের স্মার্টফোনগুলো বিশ্বের অধিকসংখ্যক ব্যবহারকারীদের নিকট পৌঁছে দেয়ার জন্য”। অপোর ভাইস প্রেসিডেন্ট, এলেন ওয়ু সম্মেলনে তার বক্তব্যে বলেন, “মোবাইলফোন ইন্ডাস্ট্রির জন্য আসন্ন ফাইভজি যুগ সত্যিই অভূতপূর্ব এবং অপো, এই ক্ষেত্রে নানাবিধ সুযোগ-সুবিধা লুফে নিতে তার পার্টনারদের সাথে একত্রিত হয়ে কাজ করবে। বিশ্বের ব্যবহারকারীদেরকে শ্রেষ্ঠ ফাইভজি অভিজ্ঞতা দিতে অপো ২০১৯ সালে ফাইভজি মোবাইলফোন চালু করার পরিকল্পনা করছে। কোয়ালকম টেকনোলজি সবসময়ই আমাদের প্রধান স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার রয়েছে এবং এই ইন্ডাস্ট্রির সুস্থ উন্নয়ন সহজতর করতে অপো, কোয়ালকমের সাথে তার সম্পর্ক আরো দৃঢ় করতে অব্যাহত থাকবে”। ফাইভজি মোবাইল নেটওয়ার্ক বিশ্বের মোবাইল ইন্ডাস্ট্রির কাঠামো পরিবর্তন করতে যাচ্ছে-অপোর সিইও, টনি চেন ফাইভজি মোবাইল নেটওয়ার্ক বিশ্বের মোবাইল ইন্ডাস্ট্রির কাঠামো পরিবর্তন করতে যাচ্ছে-অপোর সিইও, টনি চেন অপো, ব্যবহারকারীদের নতুন নতুন উদ্ভাবন, ক্রমাগত ফাইভজি পণ্য এবং অন্যান্য অত্যাধুনিক প্রযুক্তির জন্য তৈরী হওয়ার মতো চাহিদাগুলোর জন্য অবিরত কাজ করে যাচ্ছে। ১৬ জানুয়ারী, ২০১৮ তে চায়নার তিনটি মন্ত্রনালয় দ্বারা প্রতিষ্ঠিত মূল প্রমোশন প্রতিষ্ঠান আইএমটি-২০২০ (ফাইভজি) প্রমোশন গ্রুপ, বেইজিংয়ে ৩টি স্পেসিফিকেশনের ফাইভজি টেকনোলজি আরএ্যান্ডডি ট্রায়াল পর্ব রিলিজ করে। স্মার্টফোন ম্যানুফ্যাকচারার হিসেবে একমাত্র অপো সেখানে অংশগ্রহণ করে এবং ফাইভজি স্ট্যান্ডার্ড গঠনে অবদান রাখে। ২০১৫ এর শুরুতে, পরবর্তী টেলিকমিউনিকেশন স্ট্যান্ডার্ডের জন্য অপো একটি বিশেষ আর এ্যান্ড ডি দল গঠন করেন এবং সেখানে আন্তর্জাতিক স্ট্যান্ডার্ড উন্নয়ন ক্ষেত্রে প্রচুর অভিজ্ঞতাসম্পন্ন সব বিশেষজ্ঞ নিয়োগ করে যা বর্তমানে স্মার্টফোন ইন্ডাস্ট্রিকে রিসার্চ এক্সিলেন্সের দিকে পরিচালিত করছে।বিশ্বের নেতৃত্বস্থানীয় প্রযুক্তি উদ্ভাবক চীনের নির্মাতারা বাণিজ্যিকভাবে ফাইভজি নেটওয়ার্কগুলির সাথে সম্পর্ক তৈরী করছে। এবং বর্তমানে, তারা তাঁদের প্রতি বিশ্বাস ধরে রাখতে বিশ্বব্যাপী গ্রাহকদের জন্য ফাইভজি অভিজ্ঞতা নিয়ে আসছে বলে আশা করা যাচ্ছে।