মুঠোফোন চার্জে রেখে কথা নয় কেন, জেনে নিন

মোবাইল চার্জে থাকা অবস্থায় অনেকেই কথা বলেন। আবার অনেকে সারারাত মোবাইল চার্জ দিয়ে রাখেন। এ দুটোর কোনটি করা ঠিক না।মোবাইল ফোন চার্জে দিয়ে কথা বলার অহরহ ঘটছে বিস্ফোরণের ঘটনা।বিস্ফোরণের ঘটনায় মারাও গেছেন অনেকে। তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শুধু মোবাইল ফোন নয়, ল্যাপটপসহ বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতির ক্ষেত্রে একই ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। বার্ন ইউনিটের চিকিৎসকরা বলছেন, মোবাইল কানের ওপর বিস্ফোরণ ঘটার কারণে কান, চোখ ও মাথা দগ্ধ হয়ে থাকে। এমনকি ঘটনার শিকার ব্যক্তির শ্বাসনালি পর্যন্ত দগ্ধ হতে পারে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে রোগী গুরুতর আহত হয়ে পড়েন। তাই মোবাইল ফোন চার্জে দিয়ে কথা না বলার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মোবাইল ফোন চার্জ দিয়ে কথা বলার সময় ইন্টারনেট ডেটা চালু থাকলে সেটি আরও বেশি বিপজ্জনক। মোবাইলে চার্জ দেওয়া এবং ইন্টারনেট চালু রাখা অবস্থায় কথা বলা সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ। তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ তানভীর হাসান জোহা এ বিষয়ে একটি জাতীয় গণমাধ্যমকে বলেন, মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট ডেটা চালু করলে তার মাইক্রোপ্রসেসে কনজিউমিং রেট বেড়ে যায়। তখন অটোমেটিক হিট (তাপমাত্রা) জেনারেট করে। তখন মাইক্রোকন্ট্রোলার গরম হবে। একটি নির্দিষ্ট তাপমাত্রা ছাড়িয়ে গেলেই বিস্ফোরণ ঘটে। কম্পিউটারের পিসি বা এসিতে ফ্যান থাকে, যেটা ওই যন্ত্রটিকে ঠা-া রাখে। কিন্তু মোবাইল ফোনে সেটি থাকে না। আধুনিক স্মার্টফোন ডিভাইস কিংবা ল্যাপটপগুলোতে এখন লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি ব্যবহৃত হচ্ছে। এই ব্যাটারিগুলো চার্জের সময় কিছুটা গরম হয়। সমস্যা হয় যখন এই গরম হওয়ার মাত্রা বেড়ে যায়। কখনও কখনও বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকেও এর তাপমাত্রা বেড়ে গিয়ে আগুন ধরে যেতে পারে কিংবা বিস্ফোরিত হতে পারে। আসল ব্যাটারিতে এসব সমস্যা তেমন একটা হয় না কেননা সেগুলো তৈরির সময়ই এসব সমস্যার কথা মাথায় রেখে উন্নত প্রযুক্তিতে তৈরি করা হয়। কিন্তু নিম্নমানের ব্যাটারি প্রস্তুত করার সময় এসব নিরাপত্তার কথা ভাবাও হয় না। ফলে নিম্নমানের ব্যাটারি ব্যবহারে দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা অনেকাংশে বেড়ে যায়।তাই মোবাইলে ব্যাটারি ব্যবহারে সাবধান হওয়া উচিৎ।

 

 

 

2018-02-03T07:48:53+00:00February 3rd, 2018|তথ্য প্রযুক্তি|
Advertisment ad adsense adlogger