অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে চান? কয়েকটি অ্যাপের সহায়তা নিন

অনলাইনে অর্থ উপার্জনের উপায়ের সন্ধান করেন অনেকেই। কিন্তু সঠিকভাবে অর্থ উপার্জনের উপায় না পেয়ে অনেকেই বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের দ্বারা প্রতারিত হন। যদিও অনলাইনে অর্থ উপার্জন বাস্তবে অর্থ উপার্জনের মতোই কঠিন কাজ। এ ক্ষেত্রে সঠিকভাবে শিখে নিয়ে তারপর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ক্লায়েন্টের চাহিদা অনুযায়ী কাজ করে অর্থ উপার্জন করতে হয়। এ ক্ষেত্রে কয়েকটি উপায় দেওয়া হলো এ লেখায়। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ফক্স নিউজ।

ফিল্ড এজেন্ট
এ অ্যাপের মাধ্যমে আপনি কোনো প্রতিষ্ঠানের ফিল্ড এজেন্টের কাজ করতে পারবেন। এ জন্য যেসব কাজ করা যেতে পারে তার মধ্যে রয়েছে কোনো দোকানের ডিসপ্লের ছবি তোলা কিংবা ভিডিও করা। এ ছাড়া ভোক্তাদের জরিপ করার কাজও কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান দিতে পারে। এ ক্ষেত্রে আপনার যদি ফোনে ইন্টারভিউ নিতে হয় তাহলে সুন্দরভাবে কথা বলা শিখতে হবে। আর ছবি তুলতে হলে সে জন্য প্রয়োজনীয় উচ্চমানের ডিভাইস থাকতে হবে। অ্যাপটির নাম- Field Agent.

টাস্কর‌্যাবিট
এ কাজটি করতে হলে আপনার নির্দিষ্ট কাজে প্রশিক্ষণ কিংবা দক্ষতা থাকতে হবে। এরপর সে কাজটি করতে কোনো ব্যক্তিকে অনলাইনে পরামর্শ দিতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে আপনি যদি ফার্নিচার অ্যাসেম্বল করা, শপিং, ছোটখাট মেরামত কিংবা পার্টি করার পরিকল্পনা থাকে তাহলে সে দক্ষতাগুলো জানিয়ে দিন। এরপর আপনার ইন্টারভিউ ও ব্যাকগ্রাউন্ড চেক করবে তারা। আপনি যদি সবকিছু উৎরে যান তাহলে কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হবে। সেক্ষেত্রে আপনাকে টাস্কার মর্যাদা দেওয়া হবে। অ্যাপটির নাম- TaskRabbit.

থাম্বট্র্যাক
এ অ্যাপটি আপনাকে নিজস্ব আয়ের উৎস তৈরি করতে সহায়তা করবে। এ ক্ষেত্রে আপনি যদি বিভিন্ন প্রফেশনালদের সহায়তা করতে পারেন তাহলে এ কাজের উপযুক্ত বলে বিবেচিত হবেন। এসব কাজের মাঝে রয়েছে যে প্রফেশনালরা কাস্টমার খুঁজছেন, তাদের কাস্টমার খুঁজে দেওয়া। যেমন পার্সোনাল ট্রেইনার, মেকআপ আর্টিস্ট, পেইন্টার, ফ্লোরিস্ট ইত্যাদি পেশার লোকজনের জন্য কাজ করা। প্রফেশনালরা আপনাকে জানিয়ে দেবে যে, কোন কোন বিষয়ে তাদের সহায়তা প্রয়োজন। সে অনুযায়ী আপনার কাজ করতে হবে। অ্যাপটির নাম- Thumbtack.

হ্যান্ডমেড উপাদান বিক্রি
অনলাইনে আপনি হ্যান্ডমেড উপাদান বিক্রি করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে দেশের কিংবা বিদেশের বিভিন্ন স্থানের উৎপাদনকারী ও বিক্রেতাদের থেকে মানসম্মত পণ্য নিয়ে তার ছবি ও গুণাগুণসহ অনলাইনে তুলে দেবেন। এরপর আগ্রহী ক্রেতারা আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করবে। তাদের হাতে পণ্যগুলো পৌঁছানোর একটি ভালো ব্যবস্থা ও অর্থ তোলার জন্য ব্যবস্থা করতে হবে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশে বর্তমানে বিকাশসহ কয়েকটি উপায়ে অর্থ নিতে পারবেন। এ ছাড়া ক্যাশ অন ডেলিভারি একটি ভালো উপায় হতে পারে।

ইটসি
অনলাইনে পণ্যের ক্যাটালগ তৈরির জন্য কয়েকটি অ্যাপও রয়েছে। এসব অ্যাপের মধ্যে ইটসি দেখতে পারেন। এ অ্যাপটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যের অ্যাপ হলেও আপনার বিক্রিত পণ্যের মূল্যের ওপর সাড়ে তিন শতাংশ লভ্যাংশ নেবে তারা। অ্যাপটির নাম- Etsy.

লেখালেখি করে অর্থ উপার্জন
আপনি যদি অনলাইনে লেখালেখি করে অর্থ উপার্জনে আগ্রহী থাকেন তাহলে সবার আগে লেখার দক্ষতা অর্জন করতে হবে। ইংরেজিতে লিখতে পারলে সবচেয়ে ভালো উপার্জনের সুযোগ পাওয়া যাবে। এ ক্ষেত্রে লেখালেখির কয়েকটি অ্যাপ আছে।

রাইটারঅ্যাকসেস
এ সার্ভিসটি ফ্রিল্যান্স লেখকদের জন্য অন্যতম প্ল্যাটফর্ম। এখানে প্রথমেই আপনার প্রোফাইল তৈরি করতে হবে এবং আপনার রিজুমি পাঠাতে হবে। এরপর তারা আপনাকে একটি টেস্ট দেবে। এ টেস্টে উতরে গেলে তারপর আপনাকে একটি রেটিং দেবে। এ রেটিংয়ের ভিত্তিতে নির্ধারিত হবে আপনার সম্মানী। আপনি যদি দুই স্টার রেটিং পান তাহরে প্রতি শব্দ লেখার জন্য ০.০২ ডলার করে সম্মানি পাবেন। তবে সিক্স স্টার রেটিং পেলে আপনি প্রতি শব্দ লেখার জন্য ০.১০ থেকে ২ ডলার পর্যন্ত উপার্জন করতে পারবেন। অ্যাপটির নাম- WriterAccess

লিস্টভার্স
অনলাইনে আপনি নিবন্ধ লিখে অর্থ উপার্জন করতে চাইলে লিস্টভার্স-এর সহায়তা নিতে পারেন। এখানে আপনি যেকোনো বিষয়ে বিভিন্ন স্থান থেকে তথ্য সংগ্রহ করে লিখতে পারবেন। ধরুন আপনি বিভিন্ন বিষয় থেকে সংগ্রহ করে ১০টি মজার বিষয় তুলে ধরলেন একটি ১৫০০ ওয়ার্ডের লেখায়। এরপর এ লেখাটি যদি তারা গ্রহণ করে তাহলে সে জন্য আপনাকে ১০০ ডলার দেবে। অ্যাপটির নাম-ListVerse.

2019-01-16T11:27:01+00:00January 16th, 2019|তথ্য প্রযুক্তি|
Advertisment ad adsense adlogger